ঈশ্বরগঞ্জে প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের টাকায় গৃহ নির্মাণে বাঁধাদান

রতন ভৌমিক
প্রকাশিত : সোমবার ২০ মে, ২০১৯ /

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে প্রধানমন্ত্রীর গৃহঋণ পুনর্বাসনের আওতায় পৈত্রিক ভিটায় গৃহ নির্মাণে বাধা দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ভূমিলোভী প্রতিবেশীর বাধায় বর্তমানে পরিবারটি খোলা আকাশের নিচে দিনাতিপাত করছে।

অভিযোগে প্রকাশ, উপজেলা সদর ইউনিয়নের জয়পুর গ্রামের মৃত আবেদ আলীর ছেলে শহিদ মিয়া (৫০) আবু ছিদ্দিক (৪২) বংশ পরম্পরায় ওই গ্রামে বসবাস করে আসছে। জীবিকার তাগিদে শ্রমজীবী শহিদ ও ছিদ্দিক প্রায় ১৫/১৬ বছর যাবত ঢাকায় অবস্থান করায় প্রতিবেশী ভূমিলোভী চান মিয়া ও সুরুজ আলী গংদের কুদৃষ্টি পড়ে তাদের পৈত্রিক ভিটার উপর।

জানা গেছে, শহিদ মিয়া ও ছিদ্দিক দীর্ঘদিন ঢাকার মালিবাগ রেল বস্তিতে বসবাস করত। পরে প্রধানমন্ত্রীর সদিচ্ছায় গৃহ নির্মাণ পুনর্বাসনের আওতায় প্রায় ৫ মাস পূর্বে ১ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা অনুদান পেয়ে পৈত্রিক ভিটায় গৃহ নির্মাণ করতে জয়পুর গ্রামে আসে। এক পর্যায়ে ভূমিলোভী চান মিয়া ও সুরুজ আলী গংরা গৃহ নির্মাণে বাধা দেয় এবং ওই জমি নিজেদের বলে দাবি করে। এমতাবস্থায় শহিদ মিয়া বৃদ্ধা মা ও প্রতিবন্ধী কন্যাসহ পরিবার পরিজন নিয়ে ঝড় বৃষ্টির দিনেও খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছে। এঘটনায় এলাকায় সাধারণ মানুষের মনে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। এ অন্যায়ের প্রতিকার চেয়ে শহিদ ও আবু ছিদ্দিক উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

ভুক্তভোগী শহিদ মিয়া ও আবু ছিদ্দিক বলেন, জমির সকল কাগজপত্র থাকার পরও পৈত্রিক ভিটায় গৃহ নির্মাণে বাধা দেয়ায় আমরা হতবাক। আমরা এ অন্যায়ের উপযুক্ত বিচার চাই।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মে রুমানা তুয়া অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বিষয়টি সমাধানের জন্য সদর ইউপি চেয়ারম্যানকে যথাযত ব্যাবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

ঈশ্বরগঞ্জ সদর ইউপি চেয়ারম্যান আবু হানিফা বলেন, বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহোদয় আমাকে অবহিত করেছেন। শীঘ্রই এ ব্যাপারে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়া হবে।

আপনার মতামত লিখুন :