এবার সরিষাবাড়ীতে কল্লাকাটা সন্দেহে যুবককে গণপিটুনি

গৌরীপুর নিউজ
প্রকাশিত : সোমবার ২২ জুলাই, ২০১৯ /

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে কল্লা কাটা চক্রের সদস্য সন্দেহে রুবেল মিয়া (৩২) নামের এক যুবককে পিটিয়ে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয় জনতা। রোববার (২১ জুলাই) দুপুরে উপজেলার পোগলদিঘা ইউনিয়নের কান্দারপাড়া বাজার জামে মসজিদ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সরিষাবাড়ী উপজেলার তারাকান্দি যমুনা সারকারখানা এলাকায় ভবঘুরে রুবেল মিয়া (৩২) নামে এক ব্যক্তি সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ঘোরাফেরা করতে থাকে। দুপুর ২টার দিকে কান্দারপাড়া বাজার জামে মসজিদ এলাকার চা দোকানদার গোলাপ আলী’র চায়ের দোকানে রুবেল চা পান করে। পরে মসজিদে নামাজ পড়তে যাওয়ার সময় উৎসুক স্থানীয় লোকজন তাকে কল্লা কাটা দলের সদস্য হিসেবে সন্দেহ করে গণপিটুনি দিয়ে গাছের সাথে বেঁধে রাখে। পরে মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমান, ইউপি সদস্য মিজানুর রহমান, ইসাহাক আলী, ইমাম শরীফ উদ্দিনসহ কতিপয় লোকজন তারাকান্দি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে খবর দেন। খবর পেয়ে তারাকান্দি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই ইউনুস আলীর নেতৃত্বে একদল পুলিশ সদস্য মসজিদের ভিতর থেকে হাত পা বাঁধা আহত অবস্থায় রুবেল মিয়াকে উদ্ধার করেন। পরে তাকে জেএফ সি এল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তারাকান্দি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে নিয়ে আসে। পুলিশ তার দেহ তল্লাশী করে টুপি, আতর, পান, জর্দ্দা ও কয়েকটি ঘুমের বড়ি পেয়েছে বলে জানান এসআই ইউনুছ আলী।

এ বিষয়টি গোবিন্দাসী ইউনিয়নের স্থানীয় ৬নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুল কাদের ও ৩ নং ওয়ার্ড়ের ইউপি সদস্য সোহরাব আলী ও রুবেলের বড় ভাই নুরুজ্জামান মিয়া বাবলু মাষ্টারের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তারা সাংবাদিকদের জানান, যুবক রুবেল মিয়া টাঙ্গাইল জেলা ভূয়াপুর উপজেলার গোবিন্দাসী ইউনিয়নের কষ্টাপাড়া গ্রামের মৃত গফুর মিয়ার ছেলে। সে কল্লা কাটে না। রুবেল মাদকসেবী, চুরি, হিন্দু সেজে ভিক্ষা করা ও প্রতারণা করাই তার কাজ। সে পরিবার পরিজনের নিকট হতে বিতাড়িত।

জানতে চাইলে সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ মাজেদুর রহমান জানান, এ বিষয়ে কোন মামলা হয়নি। আটককৃতের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থার নেয়ার প্রস্তুতি চলছে।

উল্লেখ্য, এরআগে দেশের বিভিন্ন জেলায় কল্লাকাটা সন্দেহে দেয়া গণপিটুনিতে ৭জন নিহত হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :