মাওহা বাজারে কঠোর লকডাউনে স্বাস্থ্য বিধি না মেনে অস্থায়ী পশুর হাট !

শাহজাহান কবির
প্রকাশিত : মঙ্গলবার ১৩ জুলাই, ২০২১ /

পশুর হাটে তিল ধারনের ঠাই নেই পশু আর মানুষ। একজন অন্যজনের ঘা ঘেষে দাঁড়িয়েছে। কেউ দরদাম করছেন, কেউ পশু কিনে নির্ধারিত যানবাহনে উঠাচ্ছেন। লোকের মুখে মাস্ক নেই। কারো কারো মাস্ক থাকলেও হয় পকেটে, না হয় থুথনিতে। সামাজিক দুরত্বের নির্দেশনা তোয়াক্কা না করে ঝুঁকি নিয়ে পশু কেনাবেচা চলছে আজ মঙ্গলবার ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার মাওহা ইউনিয়নের মাওহা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে স্বাস্থ্য বিধি না মেনেই গৌরীপুরে বসেছে অস্থায়ী গরুর হাট মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) সাপ্তাহিক বাজার থাকলেও কোনদিন এ হাটে দেখা যায়নি গরু উঠতে। হঠাৎ কোরবানী এলে জমে উঠে গরুর হাট, তবে গরুর হাটে প্রচুর মানুষের সমাগম ঘটেছে। ইজারাদারের পক্ষ থেকেও নেই কোন সুরক্ষাব্যবস্থা, রাখা হয়নি হাত ধোয়ার জন্য পানি ও সাবানের যোগান ।  সম্প্রতি গৌরীপুরে আশংকাজনক হারে বাড়ছে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ। ছড়িয়ে পড়েছে গ্রামে-গঞ্জে, এমন সময়ে গরুর হাটে শত শত মানুষের সমাগম ভাবিয়ে তুলেছে সচেতন মহলকে।

হাটে গরু বিক্রি করতে আসা স্বপন মিয়া বলেন, ‘ একটা গরু বাড়ির কাছে বাজার জমায় গরু একটা বাজারে আনছি আজগোয়া না বেচতাললে অন্য হাটে নেওন লাগবো। বাজারে আইয়া দেহি করোনার বালাই নাই। মনে অয় করোনার হাট।’

স্থানীয়রা জানান এই বাজার ডাকের বাজার না তারা কেমনে জমাইছে তারাই জানে, মানুষে কয় উপজেলায় করোনার সংক্রমণ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ অবস্থায় অস্থায়ী গরুর বাজার চলতে থাকলে গৌরীপুরে করোনা বৃদ্ধি পাবে। স্থানীয়রা আরও জানান গতকাল ১২ই জুলাই বাজার জমানোর মাইকিং করা হলে মাইকে মাওহা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান ফকিরের সৌজন্য মাইকিং করা হয়েছে।

এবিষয়ে সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান ফকিরের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, ‘আমার নাম ভাঙ্গিয়েে এ পশুর হাটের মাইকিং করেছে স্থানীয় একটি প্র্র্র্রতারক চক্র। অথচ এ কোরবানির পশুর হাটের বিষয়ে আমি কোনভাবে অবগত নই।’

মাওহা গরুর হাট ইজারাদার সিদ্দিকুর রহমান জানান, ইউপি চেয়ারম্যানের অনুমতি নিয়ে এ পশুর হাট বসিয়েছেন তিনি। তবে এসময় সাংবাদিকদের কোন অনুমতিপত্র দেখাতে পারেননি তিনি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার হাসান মারুফ সাংবাদিবদের জানান, এ পশুর হাটের বিষয়ে কেউ অভিযোগ করেনি। তাই এ পশুর হাটের বিষয়ে অবগত ছিলেন না তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :