করোনা দুর্যোগে আর কে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্রদের উদ্যোগ

গৌরীপুর নিউজ
প্রকাশিত : শনিবার ৯ মে, ২০২০ /

শত বছরের ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ গৌরীপুর রাজেন্দ্র কিশোর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় (আরকেজিএইচএস)। ময়মনসিংহের গৌরীপুর পৌর শহরে বিদ্যাপীঠটির অবস্থান। প্রাচীন এই বিদ্যাপীঠটি ১৯১১ সালে রাজা ব্রজেন্দ্র কিশোর কর্তৃক তার পিতা রাজেন্দ্র কিশোরের নামে প্রতিষ্ঠিত হয়। শত বছরের অধিক সময় ধরে শিক্ষার আলো ছড়াচ্ছে এই বিদ্যাপীঠ।

দেশের বিভিন্ন সেক্টরে উচ্চ পর্যায়ে কর্মরত রয়েছে ঐতিহ্যবাহী এই বিদ্যাপীঠের সাবেক শিক্ষার্থীরা। অনেকেই অধ্যয়নরত দেশের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে। সর্বক্ষেত্রেই এই বিদ্যাপীঠের সাবেক শিক্ষার্থীদের রয়েছে কৃতিত্বের স্বাক্ষর।

দেশের বর্তমান করোনা দুর্যোগ মোকাবেলায় ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছে বিদ্যাপীঠের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা। প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা মিলে গঠন করেছে একটি সহায়তা তহবিল। ইতোমধ্যে তহবিলে জমা হয়েছে প্রায় পঞ্চাশ হাজার টাকা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ‘গৌরীপুর রাজেন্দ্র কিশোর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র’ নামে প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের একটি গ্রুপে চলছে সহায়তা তহবিল গঠন কার্যক্রম।

বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গঠিত তহবিল দিয়ে সহায়তা কার্যক্রম ঈদের পূর্ব মুহূর্তে পরিচালিত হবে। প্রথমত যারা বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ও বর্তমান ছাত্র, শিক্ষক ও কর্মচারীদের মাঝে যারা এই মুহূর্তে অসহায় অবস্থায় দিনযাপন করছেন। এরপর গৌরীপুর উপজেলার যে কোনো প্রান্তের দুস্থ ও অসহায় মানুষদের খুঁজে খুঁজে বের করে তাঁদের মাঝে নগদ অর্থ ও খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে সহায়তা তহবিল গঠন উপকমিটির সমন্বয়ক ও বিদ্যালয়ের ২০০৩ ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থী ইমন সরকার বলেন, শতবর্ষের অধিক সময় ধরে জনপদের এই প্রাচীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হাজারো শিক্ষার্থীর জ্ঞানপিঠ হিসেবে টিকে আছে। গৌরীপুর রাজেন্দ্র কিশোর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীগণ কর্মজীবনের নানান স্তরে স্বমহিমায় কাজ করে যাচ্ছে। কর্মজীবনের নানান স্তরে সফলতার সাথে বিচরণ করা প্রাক্তন ও সদ্য স্কুল পাস করা প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের যুগলবন্দী স্থাপনের উদ্দেশ্য থেকে একটি ভার্চুয়াল ফেসবুক গ্রুপে যুক্ত হচ্ছেন বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীগণ।

প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ে একটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন গঠন করে বাৎসরিক মিলনমেলা, সাংস্কৃতিক উদ্যোগ বাস্তবায়ন, বার্ষিক ম্যাগাজিন প্রকাশ ছাড়াও অ্যালামনাই এর মাধ্যমে বিদ্যালয়ের প্রাক্তনদের যেকোন সমস্যায় সহযোগিতা প্রদান করা, বর্তমান শিক্ষার্থীদের জন্য স্কলারশিপ প্রদানের উদ্দেশ্য নিয়ে যাত্রা শুরু হয়েছে আমাদের অনলাইন গ্রুপের। তারই ধারাবাহিকতায় বর্তমান করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে গৃহিত নানান পদক্ষেপের কারণ যারা কর্মহীন হয়ে কষ্টে দিনাতিপাত করছেন তাদের মধ্যে যেসকল পরিবার আমাদের প্রাণের বিদ্যালয়ের প্রাক্তনদের সংশ্লিষ্টতা আছে আমরা তাদের পাশে সহযোগিতা নিয়ে দাঁড়াতে চাই। আমরা মনে করি একই বিদ্যালয়ে আমরা পড়াশোনা করেছি বলে আমাদের উচিত আমাদের সহপাঠী কিংবা একই বিদ্যালয়ের অগ্রজ, অনুজ ভাইদের পাশে দাঁড়ানো। সে লক্ষ্যে আমরা কমপক্ষে ১০০টি সমস্যাগ্রস্ত পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেয়ার মাধ্যমে একসাথে আসন্ন ঈদ উদযাপনের চিন্তা থেকে একটি সহায়তা তহবিল গঠন করেছি। রাজেন্দ্র কিশোর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে এ ধরণের উদ্যোগ এটাই প্রথম। আমরা আশা করি সফলতার সাথে আমরা বর্তমান পরিস্থিতিতে সমস্যাগ্রস্থ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পরিবারগুলোর পাশে সহযোগিতা নিয়ে দাঁড়াতে পারব।

সহায়তা তহবিল গঠন উপকমিটির আহ্বায়ক এবং বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ও ১৯৮৫ ব্যাচের প্রাক্তন ছাত্র মো. বদরুল আলম কালের কণ্ঠকে বলেন, ১৯১১ সালে প্রতিষ্ঠিত আমাদের স্কুলটি শতবর্ষ সময়ের অধিক কাল ধরে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে সমাজ ও দেশের জন্য অনন্য অবদান রাখা গৌরব ও মর্যাদা ধরে রাখার তাগিদেই মূলত গৌরীপুর রাজেন্দ্র কিশোর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র নামে একটি ফেসবুক গ্রুপ যাত্রা শুরু করেছে। বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র ইমন সরকার এ গ্রুপটি প্রতিষ্ঠা করলেও এখন এর অংশীদার প্রায় একহাজার তিনশো গর্বিত প্রাক্তন ছাত্র। কতগুলো মহৎ উদ্যোগ ও পরিকল্পনা নিয়ে এ গ্রুপটি যাত্রা শুরু করেছে খুব অল্প সময় ধরে। এগুলোর মধ্যে আমাদের প্রথম উদ্যোগ হলো করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়ানো। আমরা এখন মরণঘাতী করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়ছি- কেউ সম্মুখভাগ থেকে আবার কেউ গৃহে অবরুদ্ধ থেকে। এ লকডাউন পরিস্থিতিতে সবচেয়ে অসহায় অবস্থায় রয়েছে গৃহপরিচারিকা, দিনমজুর ও মেহনতী মানুষেরা। নিত্য দিনের আয়ের উৎস-কর্ম হারিয়ে এসব মানুষের জীবন আজ বিপন্ন। করোনা পরিস্থিতির কারণে এসব সংকটাপন্ন মানুষের পাশে দাঁড়ানো আজ আমরা পবিত্র দায়িত্ব বলে মনে করছি। আমাদের প্রথম লক্ষ্য বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ও বর্তমান ছাত্র, শিক্ষক ও কর্মচারীদের মাঝে কেউ যদি অসহায় অবস্থায় থাকে তাঁদের খুঁজে বের করা। তারপর গৌরীপুর উপজেলার যে কোনো প্রান্তের দুস্থ ও অসহায় মানুষদের খুঁজে খুঁজে বের করে তাঁদের মাঝে নগদ অর্থ ও খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া। পবিত্র রমজান মাসের খাদ্য ঘাটতি এবং আসন্ন ঈদুল ফিতর এর ব্যয় মিটিয়ে আমরা এদের মুখে এ কষ্টের সময়ে কিছুটা হলেও হাসি এনে দিতে চাই। তাই আমাদের এ গ্রুপের সকল সদস্য গৌরীপুর রাজেন্দ্র কিশোর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্রদের বিনীতভাবে আহ্বান করছি আপনাদের যার যতটুকু সামর্থ্য আছে তাই দিয়ে আমাদের ত্রাণ তহবিলে অর্থ দান করুন এবং বিপন্ন মানুষদের বাঁচিয়ে রাখতে অবদান রাখুন।

প্রাক্তন ছাত্ররা নিম্নোক্ত ঠিকানায়
সহযোগিতা পাঠাতে পারবেন:
01712-074558 (বিকাশ- জনি হামিদ) 01823023857 (বিকাশ- শুভ)
01711-373227 (বিকাশ ও রকেট- নুরুজ্জামান সোহেল) 01923565107 (বিকাশ- ইমন)

 

সূত্রঃঃ কালের কন্ঠ

আপনার মতামত লিখুন :