কোটি টাকার সম্পত্তি বেদখল, ফিরে পেতে বৃদ্ধার সংবাদ সম্মেলন

জেলা প্রতিনিধি
প্রকাশিত : মঙ্গলবার ১০ নভেম্বর, ২০২০ /

নিঃসন্তান অসহায় বৃদ্ধা অমিয় প্রভা দে সরকার। প্রতারণার শিকার হয়ে কোটি টাকার সম্পদ হারিয়ে জামালপুরের সরিষাবাড়ির বারইপটল গ্রামের ওই বৃদ্ধা এখন অনাহারে অর্ধাহারে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। নগদ টাকাসহ তার কয়েক কোটি টাকার সম্পত্তি বেদখল করে নিয়েছে মৃণাল কান্তি দেব তপন নামের এক প্রভাবশালী।

এমনকি তাকে বসতভিটা থেকেও উচ্ছেদ করতে এবং প্রাণনাশেরও হুমকি দিচ্ছে তারা। তাই জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন বৃদ্ধা।

রোববার দুপুরে স্থানীয় পত্রিকা অফিসে সংবাদ সম্মেলনে বৃদ্ধার উপস্থিতিতে এসব অভিযোগ করেন বৃদ্ধার ভাইপো জীবনানন্দ দাশ জীবন। ওই সংবাদ সম্মেলনে সম্পত্তি ফিরে পেতে সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন অসহায় নিঃসন্তান বৃদ্ধা প্রভা দে সরকার।

লিখিত বক্তব্যে তিনি উল্লেখ করেন, তার স্বামী নগেন্দ্র দে সরকার ১৯১৪ সালে ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর গ্রুপ ক্যাপ্টেন পদে কর্মরত ছিলেন। তিনি জীবদ্দশায় সরিষাবাড়ি উপজেলার বারইপাটল মৌজায় ৮ একর ৯৩ শতাংশ জমি রেজিস্ট্রি করে দেন। এসব জমি ভোগ দখল করে আসছিলেন অমিয় প্রভা দে সরকার। সন্তান না থাকায় তার ভাইয়ের ছেলে জীবন চন্দ্র দে তাকে দেখভাল করে আসছিল।

কিন্তু মৃণাল কান্তি দেব নামে এক প্রভাবশালী প্রভা দে সরকারের বার্ধক্যজনিত অসুস্থতার সময় হাইকোর্টে মামলা পরিচালনার জন্য পাওয়ার অব অ্যাটর্নির ক্ষমতা নেন। ওই ক্ষমতা নেয়ার পর প্রতারণার মাধ্যমে বৃদ্ধার সমস্ত জমিজমা ক্রয়-বিক্রয়ের ক্ষমতাসম্পন্ন দলিল করে নেন তিনি।

পরে তিনি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী বৃদ্ধার সঙ্গে প্রতারণার করে তার স্ত্রী আলো রানির নামে ১ দশমিক ১৮ একর জমি রেজিস্ট্রি করেন এবং আব্দুর রহমান মাস্টারের কাছে ২১ শতাংশ জমি বিক্রি করেন।

সংবাদ সম্মেলনে অসহায় বৃদ্ধা আরো জানান, তপন দেব ভারতে নিয়ে চিকিৎসার নাম করে অসহায় বৃদ্ধার কাছ থেকে ১ কোটি ৫৬ লাখ টাকাও হাতিয়ে নেয়। বর্তমানে অবশিষ্ট ভিটাবাড়ি জমিসহ বেদখল করে উচ্ছেদ করার পাঁয়তারা করছেন তিনি। শুধু তাই নয় তার সব সম্পত্তি আত্মসাৎ ও বেদখলের প্রতিবাদ করায় নানাভাবে তাকে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছেন।

ভুক্তভোগীর অভিযোগ, প্রভাবশালী তপন দেব ও তার বাহিনীর অব্যাহত হুমকিতে তিনি ভাইপো জীবন চন্দ্রসহ লালন-পালনকারীদের জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। এ অবস্থায় সংবাদ সম্মেলনে অসহায় বৃদ্ধা প্রভা দে সম্পত্তি ফিরে পেতে প্রধানমন্ত্রীসহ স্থানীয় প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করছেন ।

এ বিষয়ে মৃণাল কান্তি দেব তপনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি কারো জমি দখল করিনি। এ অভিযোগ মিথ্যা ও বানোয়াট।

সরিষাবাড়ির পিংনা ইউপির চেয়ারম্যান মোতাহার হোসেন জয় বলেন, বিষয়টি আমার জানা ছিল না। সামাজিকভাবে আলোচনা করে মীমাংসার চেষ্টা করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :