‘খারাপ পোলারে কনস্টেবল বানায় বাপ-মা’ মন্তব্যে ক্ষমা চাইলেন এসপি

প্রকাশিত: ৩:১৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৮, ২০২০

পুলিশে কনস্টেবল পদ করা মন্তব্য প্রত্যাহার করে ক্ষমা চেয়েছেন নারায়ণগঞ্জের নতুন পুলিশ সুপার (এসপি) জায়েদুল আলম। মঙ্গলবার (০৭ জানুয়ারি) রাত পৌনে ৮টায় ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে ক্ষমা চেয়েছেন তিনি।

ফেসবুক স্ট্যাটাসে এসপি জায়েদুল লিখেছেন, ‘আমি মোহাম্মদ জায়েদুল আলম, পুলিশ সুপার হিসেবে নারায়ণগঞ্জে যোগদানের পর এক মতবিনিময় সভায় ফোর্স প্রসঙ্গে কথা বলি। আমার বক্তব্য খণ্ডিত আকারে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হচ্ছে। আমার বক্তব্যে প্রিয় পুলিশ বাহিনীর কোনো সদস্য কষ্ট পেলে আমি ক্ষমা প্রার্থনা করছি।’

গত ২৯ ডিসেম্বর গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে পুলিশের কনস্টেবল পদ নিয়ে মন্তব্য করেছিলেন কয়েকদিন আগে মুন্সিগঞ্জ থেকে নারায়ণগঞ্জে বদলি হয়ে আসা এই পুলিশ সুপার।

মতবিনিময়কালে এসপি বলেছিলেন, ‘পুলিশে ভালো পোলা ভর্তি করে কনস্টেবলে? জন্মের পর সবাই বলে আমার পোলারে ডাক্তার-ইঞ্জিনিয়ার বানাইব। কেউ তো কয় না কনস্টেবল বানাইব। এইটা বলে? তাইলে কোনটা পুলিশ কনস্টেবল হয়? যে পোলা আইএ পাস বা মেট্রিক পাস করছে, এখন ঘুরে বেড়ায়, বাপ-মা টিকতে পারে না। তখন এমপি-মন্ত্রী, এসপি-ডিসি কারে ঘুষ দেবে, কি করবে না করবে উপায় না পেয়ে তখন পুলিশ কনস্টেবলে ঢোকায়। কারণ এইটা শয়তান, এইটারে পুলিশে ঢুকাইতে হইব। এইটারে ঘরে রাখতে চায় না। এইতো অবস্থা?’

তিনি আরও বলেছেন, ‘কেউতো কয় না আমার ছেলে পুলিশে গিয়ে মানুষের ভালো সেবা করবে। এইটা কেউ বলে? সেখান থেকে আইনা ট্রেনিং দেয়াইয়া এইগুলারে ভালো করা এতো সহজ না। সে কারণে আমি বলতে পারব না যে আমার সব পুলিশ ভালো। বাংলাদেশে ৯৯ জন লোক আমরা আইন ভাঙতে চাই। সেখানে আইন কিভাবে মানাবো?’

মতবিনিময় সভায় নতুন এসপির এমন বক্তব্যে পুলিশ প্রশাসনের ভেতরে অসন্তোষ সৃষ্টি হয়। এমন বক্তব্যে কনস্টেবল থেকে শুরু করে সিনিয়র কর্মকর্তাদের অনেকেই ক্ষুব্ধ ছিলেন। এরই মধ্যে ক্ষমা চেয়ে ফেসবুক স্ট্যাটাস দিলেন এসপি।