গৌরীপুরে আগুনে পুড়লো চার কৃষকের ৭ ঘর

১৫ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি

ওবায়দুর রহমান
প্রকাশিত : রবিবার ২৫ এপ্রিল, ২০২১ /

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার বোকাইনগর ইউনিয়নের বৃ-বড়ভাগ গ্রামে অগ্নিকান্ডে চার কৃষকের ৭টি ঘরে পুড়ে ছাই। শনিবার (২৪ এপ্রিল) ইফতারের পর সন্ধ্যা ৭টায় এ অগ্নিকান্ডের ঘটনাটি ঘটে।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, অগ্নিকান্ডটি এনায়েত হোসেন আকন্দের গোয়ালঘরের আগুন থেকে সূত্রপাত ঘটে। পরে বিদ্যুৎ এর তারের সাহায্যে তা দ্রুত ছড়িয়ে যায়। এতে ২টি বসতঘর, ২টি গোয়ালঘর, ৩টি রান্নাঘর সম্পূর্ণ পুড়ে যায় ও একটি বসতঘরের আংশিক পুড়ে গেছে। ২টি পরিবারের ঘওে রক্ষিত নগদ ৭০ হাজার টাকা পুড়ে গেছে। স্থানীয় লোকজন এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। নাহলে পুরো এলাকার ঘর-বাড়ী পুড়ে যেতো।
অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে মৃত রইছ উদ্দীন আকন্দের ছেলে এনায়েত হোসেন আকন্দ, বিল্লাল ফকির, একদিল হোসেন আকন্দ ও মৃত সৈয়দ আঃ বারীর ছেলে সৈয়দ মুজিবুর রহমান নামে চার কৃষক।
অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ এনায়েত হোসেন আকন্দ এ প্রতিবেদককে বলেন, আমাদের ঘরে একটি সুতার নালও নাই। আমার বড় ছেলে শাহাদাত আকন্দের এসএসসি ও ডিপ্লোমার সার্টিফিকেট, ছোট ছেলে এবাদত আকন্দের এসএসসির সার্টিফিকেট, জমির দলিল, জাতীয় পরিচয়পত্র, কাপড়-চোপড়, ধান-চাল, আসবাবপত্রসহ ট্রাংকে গচ্ছিত গরু বিক্রির নগদ ৫০ হাজার টাকাও পুড়ে যায়। আগুনে পুড়ে সবকিছু হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে গেছি।তিনি আরো বলেন, সবকিছু মিলিয়ে আমাদের প্রায় ১৪-১৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে।
অগ্নিকান্ডের পরে রাত ১১টায় স্থানীয় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মোফাজ্জল হোসেন খান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার হাসান মারুফ, বোকাইনগর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ হাবিব উল্লাহ ও বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এসময় ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আল মুক্তাদির শাহীন হাঁড়িপাতিল, কাপড় অন্যান্য নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস সহায়তা দেন।
ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ হাবিব উল্লাহ বলেন, তাৎক্ষণিক প্রয়োজনীয় নিত্যপণ্য, কাপড়-চোপড় প্রদান করেছি। নতুন করে ঘর নির্মাণের জন্য কিছু টিনের ব্যবস্থা করেছি। আগামীকাল তাদের হাতে তুলে দেয়া হবে।
গৌরীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার হাসান মারুফ বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে প্রাথমিকভাবে কিছু সহযোগিতা করেছি। চূড়ান্তভাবে ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ করে সরকারি অনুদান দেয়ার চেষ্টা করবো।

আপনার মতামত লিখুন :