গৌরীপুরে কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে সেই পুলিশ সদস্য সাসপেন্ড

মশিউর রহমান কাউসার
প্রকাশিত : শনিবার ৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১ /

ময়মনসিংহের গৌরীপুরে কলেজ ছাত্রীকে বিয়ের প্রতিশ্রæতিতে ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ সদস্য রানা মিয়া (২৭) কে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) নরসিংদীর পলাশ থানার পুলিশ কনস্টেবল রানা মিয়ার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে গৌরীপুর থানায় মামলা করেন ভুক্তভোগী কলেজ ছাত্রীর বাবা। এরপর প্রথমে তাকে ক্লোজড করা হয়। পরবর্তীতে রানাকে চাকুরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে বলে শনিবার সন্ধ্যায় বিষয়টি নিশ্চিত করেন গৌরীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ খান আব্দুল হালিম সিদ্দিকী।

পুলিশ সদস্য রানা মিয়া গৌরীপুর উপজেলার খালিজুরী গ্রামের মোঃ মজনু মিয়ার ছেলে। তিনি নরসিংদীর পলাশ থানায় পুলিশ কনস্টেবল কর্মরত ছিলেন। অপরদিকে ভুক্তভোগী কলেজ ছাত্রীর বাড়ি একই উপজেলার পাশর্^বর্তী গ্রামে।

প্রসঙ্গত, পুলিশ কনস্টেবল রানা বিয়ের প্রতিশ্রæতিতে ওই কলেজ ছাত্রীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তুলে। ২৮ আগস্ট রাতে বাড়ির সামনে বাগানে তাদের দু’জনকে আপত্তিকর অবস্থায় ধরে ফেলে স্থানীয় লোকজন। এনিয়ে ওই রাতে সালিশ চলাকালে রানা কৌশলে পালিয়ে যান। তাই পরদিন বিকেল থেকে ওই তরুণী ফাঁসির দড়ি সঙ্গে নিয়ে রানার ঘরে অবস্থান করলেও সম্পর্ক মেনে নেয়নি রানার পরিবারের লোকজন। অবশেষে গৌরীপুর থানায় ধর্ষণের অভিযোগে রানার বিরুদ্ধে মামলা করেন ওই তরুণীর বাবা।

গৌরীপুর থানার ওসি খান আব্দুল হালিম সিদ্দিকী সাংবাদিকদের জানান, আদালতে জবানবন্দি ও ফরেনসিক পরীক্ষার পর ভিকটিমকে তার পরিবারের জিম্মায় দেয়া হয়েছে। সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি পেলেই রানাকে গ্রেফতার করা হবে বলে জানান তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :