গৌরীপুরে ট্রেনে ডাকাতি, জনতার হাতে আটক দুই

গৌরীপুর নিউজ
প্রকাশিত : মঙ্গলবার ১২ জানুয়ারী, ২০১৬ /

Gouripur dhakath picমোঃ কামাল উদ্দিন, গৌরীপুরঃ ময়মনসিংহের গৌরীপুরে মোহনগঞ্জ-ময়মনসিংহগামী ২৬৩ আপ ট্রেনের ১টি কোচে ডাকাতি শেষে পালিয়ে যাওয়ার সময় শাহবাজপুর নামক স্থানে ডাকাত দলের ২ সদস্যকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয় জনতা। আটককৃত হলেন- গৌরীপুর উপজেলার শালিহর গ্রামের আব্দুল বারেকের ছেলে কাউসার (২৬) ও ফুলপুর উপজেলার বিসকা এলাকার মৃত আঃ হেকিমের ছেলে আঃ সেলিম (৩০)। গত শনিবার দিবাগত রাত পৌনে বারটার দিকে গৌরীপুর রেলওয়ে স্টেশানের আউটার সিগন্যালের আদূরে এ আটকের ঘটনা ঘটে।
গৌরীপুর রেলওয়ে পুলিশ ও যাত্রী সূত্রে জানা যায়, শনিবার রাত সাড়ে এগারটার দিকে শ্যামগঞ্জ-গৌরীপুর রেলপথের মাঝামাঝি ২৬৩ আপ মোহনগঞ্জ-ময়মনসিংহগামী চলন্ত ট্রেনে ৭/৮ জনের ওই ডাকাতদল অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে যাত্রীদের কাছ থেকে স্বর্ণালংকার, নগদ টাকা ও মোবাইল ফোনসহ প্রায় দুই লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। এসময় ডাকাত দলের হামলায় বেশ কয়েকজন নারী ও পুরুষ যাত্রী আহত হন।
প্রত্যক্ষদর্শী যাত্রীরা জানান, নেত্রকোণার জেলার মোহনগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা ময়মনসিংহগামী ওই ট্রেনটি শ্যামগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনে প্রায় ২৫ মিনিট যাত্রা বিরতি দেয়। এসময় কর্তব্যরত পুলিশ ময়মনসিংহগামী যাত্রীদের প্রথম কোচে ও গৌরীপুরের যাত্রীদের দ্বিতীয় কোচে উঠার নির্দেশ দিয়ে তিনি যাত্রীবিহীন তৃতীয় কোচে ওঠেন। পরে ট্রেনটি শ্যামগঞ্জ স্টেশান ছেড়ে আউটার সিগন্যাল পার হওয়ার সাথেসাথে কোচের লাইটগুলো নিভে যায়। এসময় ট্রেনের প্রথম কোচে যাত্রীবেশে উঠা ৭/৮ জনের ডাকাতদল অস্ত্রের মুখে যাত্রীদের জিম্মি করে তাদের স্বর্ণালংকার, নগদ টাকা ও বেশ কয়েকটি মোবাইলফোন লুট করে নেয়। এতে ডাকাতদের সাথে হুড়োহুড়িতে ডাকাতদলের অস্ত্রাঘাতে বেশ কয়েকজন যাত্রী আহত হন। চলন্ত ট্রেনটি গৌরীপুর স্টেশনের আউটার সিগন্যালের সন্নিকটে আসামাত্র এর গতি কমে যাওয়া ডাকাতদলের সদস্যরা নির্বিগ্নে ট্রেন থেকে নেমে যায়। পরে ট্রেনটি গৌরীপুর স্টেশনে এসে পৌছলে ক্ষতিগ্রস্ত যাত্রীরা ট্রেন থেকে নেমে এর গতিরোধ করে কর্তব্যরত পুলিশকে ধাওয়া করে ট্রেনের কর্মকর্তারা জড়িত থাকার অভিযোগ এনে তাৎক্ষনিক বিক্ষোভ মিছিল করে।
এদিকে পালিয়ে যাওয়ার পথে রেলওয়ে স্টেশান থেকে প্রায় দেড় কিলোমিটার দূরবর্তী শাহবাজপুর নামক স্থানে স্থানীয় জনতার গতিরোধের মূখে অন্যেরা পালিয়ে গেলেও আটক হয় ডাকাতদলের দুই সদস্য- কাউছার ও সেলিম। এসময় তারা ট্রেনে ডাকাতির বিষয়টি স্বীকার করলে স্থানীয় জনতা তাদের গৌরীপুর রেলওয়ে ফাঁড়ি পুলিশের নিকট সোপর্দ করেন।
রাতে চলন্ত ট্রেনে ডাকাতি ও যাত্রীদের বিক্ষোভ‘র সত্যতা স্বীকার করে গৌরীপুর রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ নিরঞ্জন সরকার জানান, আটককৃত কাউছার ও সেলিমকে ডাকাতি‘র মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে রবিবার সকালে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :