গৌরীপুরে “ঠিকানা আবাসন প্রকল্পের” মাধ্যমে ঘর পেলেন ইজ্জল আলী

ফারুক আহাম্মদ
প্রকাশিত : রবিবার ২৭ জুন, ২০২১ /

ইজ্জত আলী পেশায় দিনমজুর তার স্ত্রী শারিরিক প্রতিবন্ধি মর্জিনা বেগম তাদের তিন মেয়ে সন্তান নিয়ে তাদের পরিবার। ইজ্জত আলীর ত্রিক সূত্রে পাওয়া বাড়ীর ২ শতক জমি ছাড়া অার কোন জমিজমা নেই। ছোট্ট একটি টিনের চালার বাশের ছটার বেড়ার ঘরটিতে ঝড় বৃস্টি সহ নানা প্রতিকুলতায় সে ঘরেই কোনমতে বসবাস করতেন ইজ্জত অালীর পরিবার। অন্যের বাড়িতে কাজ করে দু-মুঠো ভাত মেলে কখনো। আবার কাজ না থাকলে খালি পেটেই থাকতে হয় তাদের। বিবাহ যোগ্য ২মেয়েকে বিয়ে দিতে পারছিলেননা একটি বসত ঘরের জন্য।

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার ভাংনামারী ইউনিয়নের বারুয়ামারী উত্তর পাড়ার বাসিন্দা হতদরিদ্র ইজ্জত আলীর পরিবারের এই করুণ জীবনের কথা শুনে অবশেষে ইজ্জত আলীর পরিবারকে একটি ঘর তৈরী করে দিয়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন, আত্ন সামাজিক উন্নয়ন মুলক সামাজিক সংঘঠন মায়ের মমতা কল্যাণ সংস্থা। সংস্থার ব্যবস্থাপনায় ঠিকানা আবাসন প্রকল্পের” মাধ্যমে তাঁকে তাঁর স্বপ্নের ঠিকানার চাবি তুলে দেন সংস্থার পৃস্টপোষক ও সমাজ সেবক বীর মুক্তিযোদ্ধা কামাল চৌধুরী।
অসহায় গৃহহীন মানুষের জন্য ” ঠিকানা আবাসন প্রকল্প ” উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে মানবিকতার নতুন দিগন্তে পা বাড়াল মায়ের মমতা কল্যাণ সংস্থা।
২৭জুন রবিবার সকাল ১১টায় ইজ্জত আলীর নতুন ঘরের চাবি হস্তান্তর ও ইজ্জত আলীর নতুন গৃহে প্রবেশ উপলক্ষে তার বাড়ীতে সংস্থার পরিচালনা পরিষদের সদস্যগন উপস্থিত ছিলেন।

সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি বিশিষ্ঠ নাঠ্যকার ও কথা সাহিত্যিক অধ্যাপক ফজলুল হক। মোঃমকবুল হোসেন মাস্টার, প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও কোষাধক্ষ মায়ের মমতা কল্যাণ সংস্থা।সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা সদস্য আনোয়ারা বেগম, সংস্থার উপদেষ্ঠা হারুন অর রশিদ।সংস্থার সিনিয়র সদস্য ও বারুয়ামারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধানশিক্ষক আব্দুল মালেক, সংস্থার প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ও বারুয়ামারী উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক একেএম আমিনুল হক, ইয়াসিন সরকার, সদস্য মায়ের মমতা কল্যাণ সংস্থা,ও সন্মানিত রেক্টর বারুয়ামারী উচ্চ বিদ্যালয়। সবিনা ইয়াসমিন, শিক্ষা ও উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক, মায়ের মমতা কল্যাণ সংস্থা ও সিনিয়র শিক্ষক বারুয়ামারী উচ্চ বিদ্যালয়।কোহিনুর নাহার প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মায়ের মমতা কল্যাণ সংস্থা ও সিনিয়র শিক্ষক বারুয়ামারী উচ্চ বিদ্যালয় উপস্থিত ছিলেন এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তি বর্গ।

আপনার মতামত লিখুন :