গৌরীপুরে তিন বছর ধরে বন্ধ উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র, সেবা বঞ্চিত দেড় লাখ বাসিন্দা

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশিত : সোমবার ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ /

ডাক্তার না থাকায় তিন বছর ধরে সেবা বন্ধ রয়েছে ময়মনসিংহের গৌরীপুরের সহনাটি ইউনিয়নের উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রে। ফলে ইউনিয়নের প্রায় দেড় লাখ বাসিন্দা চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

স্থানীয়রা জানান, স্বাস্থ্যকেন্দ্রের ভবন বেশিরভাগ সময় তালাবদ্ধ থাকে। এলাকাবাসী স্বাস্থ্যকেন্দ্রের চত্বরে গরু-ছাগল বেঁধে রাখায় এখন এটি গোচারণ ভূমিতে পরিণত হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার পূর্বাঞ্চলীয় জনপদের সহনাটি ইউনিয়নের পাচার বাজারে ইউনিয়ন উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি অবস্থিত। চালু থাকা অবস্থায় উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রে একজন মেডিকেল অফিসার, একজন উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার, একজন ফার্মাসিস্ট, একজন পিয়ন ও একজন আয়া থাকতেন। প্রতিদিন ইউনিয়নের প্রায় ২০০ রোগী এই স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসা নিতেন। কিন্তু বদলি ও অবসরজনিত কারণে তিন বছর ধরে পদগুলো শূন্য রয়েছে। ফলে চিকিৎসা সেবাও বন্ধ।

রোববার (২৯ সেপ্টেম্বর) সরজমিনে দেখা গেছে, স্বাস্থ্যকেন্দ্রের ভবনটি তালাবদ্ধ। চত্বরে চড়ানো হচ্ছে গরু-ছাগল। স্বাস্থ্যকেন্দ্রর চারপাশে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে ময়লা-আবর্জনা। স্যাঁতসেঁতে ভবনের জানালার ফাঁক দিয়ে দেখা গেল ভেতরেও ময়লা আবর্জনার স্তূপ। ভবনের কক্ষগুলো নিয়মিত পরিষ্কার না করায় বাসা বেঁধেছে মাকড়শা।

এদিকে স্বাস্থ্যকেন্দ্রের প্রবেশ পথের ফটক খোলা থাকায় ডাক্তার আসবেন এমন আশায় ২০/২৫ জন রোগী অপেক্ষা করছেন। তবে সকাল গড়িয়ে দুপুর হলেও ডাক্তার না আসায় ফিরে যান তারা।

চিকিৎসা নিতে আসা সহনাটি গ্রামের অসহায় বৃদ্ধা ফুলবানু বলেন, ‘কোমবালা (কোন বেলা) থেইক্যা বইয়্যা রইছি। ডাক্তর আওনের খবর নাই। অহন ওষুধ পাতি ছাড়াই বাইত (বাড়িতে) যাইতাছি গা।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রবিউল ইসলাম বলেন, ‘এই উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের সকল পদই শূন্য। তবে বিকল্পভাবে চিকিৎসাসেবা দেওয়ার জন্য অচিন্তপুর ইউনিয়ন উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রের উপসহকারী কমিউনিটি বেজড মেডিকেল অফিসারকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’

অচিন্তপুর ইউনিয়ন উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রের উপসহকারী কমিউনিটি বেজড মেডিকেল অফিসার ঈমান আলী বলেন, ‘সপ্তাহের বৃহস্পতিবার আমি সহনাটি ইউনিয়নের উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রে যাই। কিন্তু ওইদিন অচিন্তপুর ইউনিয়নের স্বাস্থ্যকেন্দ্র বন্ধ রাখতে হয়।’

এদিকে সহনাটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রুহিদাস আচার্য বলেন, ‘হাসপাতালটিতে তিন বছর ধরে তালা ঝুলছে। রোগীদের চিকিৎসা সেবা মিলছে না। দ্রুত এই স্বাস্থ্যকেন্দ্রে জনবল নিয়োগ নিয়ে চিকিৎসা সেবা চালুর দাবি জানাচ্ছি।’

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফারহানা করিম বলেন, ‘বিষয়টি জেলা সমন্বয় সভায় উত্থাপন করে দ্রুত স্বাস্থ্যসেবা চালুর চেষ্টা করা হবে।’

আপনার মতামত লিখুন :