গৌরীপুরে প্রাইমারী স্কুলগুলোতে চলছে দায়সারা উন্নয়ন কাজ !

শাহজাহান কবির
প্রকাশিত : রবিবার ২০ জুন, ২০২১ /

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার রামগোপালপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২০২০- ২০২১ অর্থ বছরের ক্ষুদ্র মেরামত কাজের দুই লক্ষ টাকা বরাদ্দ পায় বিদ্যালয়টি। উক্ত বরাদ্দকৃত টাকা দিয়ে দায়সারাভাবে চলছে এ বিদ্যালয়ের সৌন্দর্যবর্ধন ও আসবাবপত্র মেরামতের কাজ।

(২০ জুন) রবিবার বিকেলে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় এক যুবক বিদ্যালয়ের দেয়াল পরিস্কার না করেই এমনকি ময়লা আবর্জনার উপরেই লাগানো হচ্ছে নতুন রঙ। এ নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এ বিষয়ে রামগোপালপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম আকন্দ (জিন্নত) জানান গতকাল আমি গৌরীপুর যাওয়ার পথে স্কুলে দেখছি একটা ছেলে ময়লা পরিস্কার না করেই নতুন রঙ লাগাচ্ছে। এমনকি এই বিদ্যালয়ে চার থেকে পাচ বছর যাবৎ কোন কাজ হয় না এডহক কমিটি দিয়ে চলছে বিদ্যালয়। প্রতিবছর স্কুলের নামে বরাদ্দকৃত ক্ষুদ্র মেরামতের টাকা যায় কোথায় ? এডহক কমিটির সভাপতি ও প্রধান শিক্ষিকা মিলে কি কাজ যে তারাই জানে।

এবিষয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকা মাহমূদা জেসমিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান বিদ্যালয়ে দুইলক্ষ টাকার কাজ করা হচ্ছে রঙ, দরজা, ঘরের সিলিং আববাবপত্র মেরামত, কিন্তু ময়লা আবর্জনার উপর রঙ করা হচ্ছে এটা আমার জানা নেই এমনকি এই কাজ করাচ্ছেন এটিও মোজাহিদ স্যার। রঙ করা কারিগরের নাম জানতে চাইলে তিনি জানান এটিও মোজাহিদ স্যার বলতে পারবেন আমি তাহার পরিচয় জানিনা।

এবিষয়ে বিদ্যালয় পরিচালনা (এডহক) কমিটির সভাপতি ও উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার মোজাহিদুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান
এখানে বাজেট কম,১ লাখ ৫০ হাজার টাকা এর মধ্যে আনুষাঙ্গিক খরছ আছে ১০ হাজার টাকা,বাকী ১লাখ ৪০ হাজার টাকার কাজ করা হবে। ময়লার উপরে রং দেওয়ার কথা না, আজকে আমি যাই নাই, প্রধান শিক্ষকের কাছে কথা বলে দেখি।

এবিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মনিকা পারভীনের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান ময়লার উপর রঙ লাগানো কোন ভাবেই সম্ভব নয়। যদি এ রকম হয়ে থাকে তদন্ত সাপেক্ষে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার মতামত লিখুন :