গৌরীপুরে মাছের নকল জীবাণুনাশক বাজারজাতের দায়ে এক ব্যক্তিকে জরিমানা

শামীম খান
প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার ২৪ জুন, ২০২১ /

মাছের নকল জীবাণুনাশক ওষুধ বাজারজাত করার দায়ে ময়মনসিংহের গৌরীপুরে কামরুল মিয়া নামে এক ব্যাক্তিকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সোমবার উপজেলার চুড়ালী গ্রামে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে এ অর্থদন্ড দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মোঃ আবিদুর রহমান।

স্থানীয় কয়েকজন মৎস্য ব্যবসায়ী জানান, নাভানা ফার্মাসিউটিক্যালের উৎপাদিত মাছের জীবাণুনাশক অ্যাকুয়াসলভ ওষুধটি নকল করে কমমূল্যে বাজারজাত করে আসছিল চুড়ালী গ্রামের কামরুল মিয়া ও তার ভাই শফিকুল ইসলাম। আসল ওষুধের বোতলে মোড়কে দাম ও মেয়াদোর্ত্তীণের তারিখ লেজার প্রিণ্ট করা থাকতো। কিন্তু তারা এ জীবাণুনাশকের একই রকম মোড়ক ও বোতল তৈরী করে ওষুধে দাম ও মেয়াদোর্ত্তীর্ণের তারিখ সিল মেরে বসিয়ে দিত। এদিকে নকল জীবাণুনাশক ব্যবহার করে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছিলেন শত শত মৎস্য চাষী।

এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়ে সোমবার এ চূড়ালী গ্রামে শফিকুলের বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আবিদুর রহমান। এসময় তাদের বাড়ি থেকে ২শ বোতল নকল অ্যাকুয়াসলভ ওষুধ জব্দ করে বিনষ্ট করা হয়। এ ঘটনায় শফিকুলের ছোট ভাই কামরুলকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

নাভানা ফার্মাসিউটিক্যালের রিজিওনাল সেলস ম্যানেজার মিজানুর রহমান জানান, অ্যাকুয়াসলভ ওষুধটির বাজারে ব্যাপক চাহিদা থাকলেও কয়েক মাস ধরে এর চাহিদা কমে যায়। পরে খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন ইউন ফার্মাসিউটিক্যালের রিপ্রেজেনটিভ শফিকুল ইসলাম ও তার ভাই কামরুল ওষুধটি নকল করে কমমূল্যে বাজারজাত করে আসছিল। এতে করে মাছচাষীরা ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার পাশাপাশি কোম্পানীর সুনামও ক্ষুন্ন হচ্ছিল। এ বিষয়ে তারা প্রশাসনকে অবগত করেছেন বলে জানান তিনি।

উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আবিদুর রহমান জানান, অভিযোগ পাওয়ার পর ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে শফিকুল ইসলামের বাড়ি থেকে ২শ বোতল নকল জীবাণুনাশক বোতল জব্দ করে বিনষ্ট করা হয়। এসময় শফিকুল বাড়িতে ছিল না। এ ঘটনায় শফিকুলের ছোট ভাই কামরুলকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

আপনার মতামত লিখুন :