গৌরীপুরে মেম্বারের কাছে জিম্মি বয়স্ক ও বিধবা ভাতার কার্ডধারীরা !

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশিত : মঙ্গলবার ২৭ এপ্রিল, ২০২১ /

ময়মনসিংহের গৌরীপুর্ উপজেলার মাওহা ইউনিয়নে অনলাইনে আবেদন করে বয়ষ্ক ও বিধবা ভাতার তালিকাভুক্তির পর সেই তালিকা দেখে দেখে ১হাজার করে টাকা আদায় করছেন এক ইউপি সদস্য।

উপজেলার মাওহা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য মোঃ এন্টাস মিয়ার বিরুদ্ধে ভুক্তভোগী নারীরা এমন অভিযোগ করেন।
১ হাজার টাকা দিলে তালিকায় নাম থাকবে নয়তো নাম কেটে দেয়ার হুমকি দেন তিনি। ভয় পেয়ে অসহায় দরিদ্র নারী-পুরুষেরা অভাবের মধ্যেই ধারদেনা করে ইউপি সদস্য এন্টাস মিয়াকে বাড়িতে গিয়ে টাকা দিয়ে আসছেন, বয়স্ক ও বিধবা ভাতার নতুন তালিকায় নিজের নাম নিশ্চিত করতে।

উল্লিখিত ওয়ার্ডে সরজমিনে গেলে, উল্লেখিত ইউনিয়নের ধারাকান্দি গ্রামের মৃত-আনফর আলীর স্ত্রী মুক্তারের মা (৭৫) জানান, বিধবা ভাতার কার্ড করার জন্য মেম্বার এন্টাস মিয়া তার কাছে ১ হাজার টাকা দাবী করেন। টাকা দিতে অপারগতা জানালে কার্ড বাতিল হয়ে যাবে বলে জানান মেম্বার। অপর দিকে বিধবা ভাতার জন্য একই গ্রামের মৃত-ওয়ারেছের স্ত্রী মর্জিনা (৫১), মৃত মোতালিবের স্ত্রী নুরজাহান ও বয়স্ক ভাতার জন্য মৃত- আবুল হোসেনের ছেলে মোঃ হাবিবুর রহমান (৭৮), প্রত্যেকে মেম্বার এন্টাস মিয়াকে ১ হাজার টাকা করে তার নিজ বাড়ীতে দিয়ে আসেছেন বলে নিশ্চিত করেন।

মাওহা ইউনিয়ন পরিষদের ১নং ওয়ার্ডের সদস্য এন্টাস মিয়া অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি কোন টাকা নেইনি শুধু আইডি কার্ডের ফটো কপি রেখেছি।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মিজানুর ইসলাম আকন্দ (অ:দা) বলেন- অনলাইনে আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে উপজেলায় বয়ষ্ক ও বিধবা ভাতার প্রাথমিক তালিকা করা হয়েছে। অন্তর্ভুক্তদের নাম, ঠিকানা ও মোবাইল নম্বর যাচাইয়ের জন্য ইউপি সদস্যদের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে আর্থিক লেনদেনের কোন সুযোগ নেই।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাসান মারুফ বলেন, ইউপি সদস্য টাকা দাবীর প্রমাণ পাওয়া গেলে তাৎক্ষণিক তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :