গৌরীপুরে যুবককে অপহরণ করে মুক্তিপণ দাবি, আটক ৩

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশিত : সোমবার ১৩ মে, ২০১৯ /

বহুতল ভবনের পাইলিংয়ের কাজ করেন মামুন মিয়া (২৬)। হাতে কাজ না থাকায় ঈদের আগে অগ্রিম টাকার অফার দিয়ে কাজে নিতে প্রস্তাব দেওয়া হয় তাকে। কাজ দেওয়ার নাম করে যুবক মামুনকে জিম্মি করে তার পরিবারের কাছে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ চাওয়া হয়। বিষয়টি জানতে পেরে গত শনিবার রাতে গৌরীপুর থানার পুলিশ অভিযান চালিয়ে অপহৃত যুবককে উদ্ধার করে এবং আটক করা হয় তিন অপহরণকারীকে।

তারাকান্দা উপজেলার কাশিগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা আবদুর রহিমের ছেলে মামুন মিয়া। তিনি বহুতল ভবনে পাইলিংয়ের কাজ করেন। হাতে কাজ না থাকায় একই এলাকার সাইফুল ইসলাম মামুনকে অগ্রিম টাকায় কাজ পাওয়ার কথা জানায়। সাইফুলের কথামতো মামুন তার সঙ্গে শনিবার বাড়ি থেকে বের হয়। কিন্তু শনিবার রাতে মামুনের পরিবারের কাছে মোবাইল ফোনে বলা হয়- মামুন তাদের কাছে রয়েছে। জীবিত পেতে চাইলে নগদ ৫০ টাকা টাকা দিতে হবে। মামুনের ফোন থেকেই কয়েক দফা ফোন করে টাকা চাওয়া হয়। মুক্তিপণ চাওয়ায় মামুনের পরিবারের লোকজন গৌরীপুর থানায় যান।

গৌরীপুর থানার ওসি আবদুল্লাহ আল মামুনের কাছে বিষয়টি জানালে কৌশলে শুরু হয় অভিযান। সাদা পোশাকে মুক্তিপণ দিতে যায় পুলিশের একটি দল। কিন্তু অপহরণকারী দলটি তা বুঝতে না পেরে পুলিশের জালে ধরা দেয়। উদ্ধার করা হয় অপহৃত যুবক মামুনকে। ওই সময় আটক করা হয় গৌরীপুর ইউনিয়নের শাহবাজপুর গ্রামের মামুন মিয়া, রফিকুল ইসলাম ও তারাকান্দার কাশিগঞ্জের ছুবুলিয়াপাড়া গ্রামের বাসিন্দা সাইফুল ইসলামকে।

এসআই বিপ্লব মহন্ত বলেন, কৌশলে অপহরণের ঘটনাটি ঘটানো হয়। মুক্তিপণ চাইতে থাকলে ভিকটিমের পরিবারের লোকজন থানায় গিয়ে বিষয়টি জানায়। পরে তারা অভিযান চালিয়ে অপহৃত কে উদ্ধার ও তিন অপহরণকারীকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করে।

আপনার মতামত লিখুন :