গৌরীপুর রেলওয়ে স্টেশন রি-মডেলিং কাজে ধীরগতি, ট্রেন যাত্রীদের দুর্ভোগ

গৌরীপুর নিউজ
প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার ১৪ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯ /

মশিউর রহমান কাউসার :
ময়মনসিংহের গৌরীপুর রেলওয়ে জংশনে শম্ভুক গতিতে এগিয়ে চলছে অর্ধ কোটি টাকা ব্যয়ে স্টেশন রি-মডেলিং এর কাজ। প্রায় ৮ মাস আগে কাজ শুরু হলেও এর মধ্যে সম্পন্ন হয়েছে মাত্র ১৫ থেকে ২০ ভাগ কাজ। এদিকে নির্মাণ কাজের জন্য স্টেশনে যাতায়াতের প্রধান রাস্তাটি বন্ধ থাকায় ট্রেন যাত্রীদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
স্টেশন রোড এলাকার নাগরিক আলী হায়দার রবিন জানান, গত বছর ৯ জুলাই গৌরীপুর রেল স্টেশন রি-মডেলিং কাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন আহমেদ এমপি। এরপর থেকে ৫-৬ শ্রমিক দিয়ে খুব ধীর গতিতে নির্মাণ কাজ করছেন সংশিষ্ট ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মালিথা ট্রেডার্স। ৫০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে এ স্টেশনে ১টি নতুন আধুনিক ভবন ও ১টি প্লাট ফর্ম নির্মাণের কথা রয়েছে। কিন্তু ৮ মাস অতিবাহিত হলেও এ পর্যন্ত এই নির্মাণ কাজের মাত্র ১৫ থেকে ২০ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এদিকে নির্মাণাধীন ভবন ও প্লাট ফর্মের স্থানটি স্টেশনে যাতায়াতের প্রধান রাস্তায় হওয়ায় এবং নির্মাণ সামগ্রী যত্রতত্র ফেলে রাখায় ট্রেন যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এক্ষেত্রে ট্রেন যাত্রীদের চলাচলের জন্য বিকল্প কোন রাস্তা করে দেয়া হয়নি।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মালিথা এন্টার প্রাইজের প্রোপাইটর হাবিবুর রহমান মালিথা জানান, তাঁর ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের নামে এ কাজটি সম্পন্ন করছেন কেন্দ্রিয় আওয়ামীলীগ নেতা সাইফুল আজম বাসার। তাই এ বিষয়ে তিনি বিস্তারিত কোন কিছু জানেন না।
মুঠোফোনে সাইফুল আজম বাসারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, স্টেশনের ভবন নির্মাণাধীন স্থানে বিদ্যুতের খুঁটি থাকায় নির্মাণ কাজ কিছুদিন বন্ধ ছিল। পরবর্তীতে বিদ্যুতের খুঁটি সড়িয়ে পুনরায় কাজ শুরু করা হয়। এসময় তিনি আগামী এক মাসের মধ্যে এ কাজ সম্পন্ন করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন। ট্রেনযাত্রীদের চলাচলের বিকল্প রাস্তার বিষয়ে তিনি বলেন, এটি রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের কাজ, তাদের নয়।
রেলওয়ে উপ সহকারী কর্মকর্তা (আই ডব্লিও গৌরীপুর) ওয়াহেদুল ইসলাম জানান, ট্রেনযাত্রীদের যাতায়াতের জন্য বিকল্প হিসেবে সরু রাস্তা রয়েছে। স্টেশনের নির্মাণাধীন ভবন সংলগ্ন দুটি পরিত্যক্ত কোয়ার্টারের ওয়াকসন কার্যক্রম সম্পন্ন হলে বড় রাস্তা করে দেয়া হবে।

আপনার মতামত লিখুন :