গৌরীপুর সরকারি কলেজে গাছ কাটার সিদ্ধান্ত থেকে সরে গেলেন অধ্যক্ষ !

শাহজাহান কবির
প্রকাশিত : মঙ্গলবার ৮ জুন, ২০২১ /

গাছের পাতা পড়ে নিচে শ্যাওলা জমে এমন তুচ্ছ অযুহাতে ময়মনসিংহের গৌরীপুর সরকারি কলেজ ক্যাম্পাসে সৌন্দর্য বর্ধনকারী জমিদার আমলের দু’টি কৃষ্ণচূড়া গাছ বিক্রির সিদ্ধান্ত নেন এ অধ্যক্ষ মিলটন ভট্টাচার্য্য। এ লক্ষে টেন্ডারের মাধ্যমে অন্যান্য গাছের সাথে কৃষ্ণচূড়া গাছগুলো বিক্রি করে দেয়া হয়। এদিকে বিক্রি করে দেয়ার বিষয়টি জানতে পেরে কৃষ্ণচূড়া গাছ রক্ষার আন্দোলনে নামের কলেজের প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা। অবশেষে আন্দোলনের মুখে কৃষ্ণচূড়া গাছ বিক্রির সিদ্ধান্ত থেকে সরে গেলেন অধ্যক্ষ।

গৌরীপুর প্রেসক্লাবের আহবায়ক ও জেলা পরিষদ সদস্য এইচ এম খায়রুল বাসার বলেন, ১৯৬৪ সনে জমিদার বাড়িতে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল ঐতিহ্যবাহী গৌরীপুর সরকারি কলেজ। প্রাচীন কষ্ণচূড়া গাছ দুটি কলেজ ক্যাম্পাসে ছায়া দেয়ার পাশাপাশি সৌন্দর্য বর্ধন করছে। তুচ্ছ অজুহাতে এ গাছগুলো কেটে ফেলার সিদ্ধান্তকে কোনমতেই সমর্থন করা যায় না। গাছ কাটার সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসায় কলেজের অধ্যক্ষকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

গৌরীপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মিল্টন ভট্টাচার্য্য মঙ্গলবার দুপুরে মুঠোফোনে সাংবাদিকদের জানান, অধ্যক্ষের কার্যালয়ের সামনে অবস্থিত দুটি কৃঞ্চচূড়া গাছ থেকে পাতা ও ফুল মাটিতে চলাচলের রাস্তা পিচ্ছিল হয়ে যেত। এ পিচ্ছিল রাস্তায় হেটে যাওয়ার সময় প্রতিনিয়ত হোঁচট খেতে হয়। এজন্য কলেজ ক্যাম্পাসে অন্যান্য গাছের সঙ্গে কৃষ্ণচূড়া গাছ দুটি বিক্রির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল। কলেজের প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের দাবির প্রেক্ষিতে কৃষ্ণচূড়া গাছ দুটি বিক্রির সিদ্ধান্ত বাতিল করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

আপনার মতামত লিখুন :