জনসমাগম ঠেকাতে নির্ধারিত সময়ের দেড় ঘন্টা আগেই জানাযার নামাজ সম্পন্ন !

মশিউর রহমান কাউসার
প্রকাশিত : শুক্রবার ২৪ এপ্রিল, ২০২০ /
কাজী এম এ মোনায়েম

করোনা ভাইরাস সংক্রামণরোধে জনসমাগম ঠেকাতে ময়মনসিংহের গৌরীপুরে নির্ধারিত সময়ের দেড় ঘন্টা আগেই বিশিষ্ট সাংবাদিক অধ্যাপক কাজী এম এম মোনায়েমের (৭০) জানাযার নামাজ পড়ানো হয়েছে। শুক্রবার (২৪ এপ্রিল) বিকেল ৪ টায় এ উপজেলার বোকাইনগর ইউনিয়নের কাজীপাড়া এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।

উল্লেখ গৌরীপুর প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও গৌরীপুর সরকারি কলেজের প্রাক্তন অধ্যাপক, বিশিষ্ট সাংবাদিক, লেখক, কলামিস্ট কাজী এম এ মোনায়েম শুক্রবার দুপুর ১২ টার দিকে গৌরীপুর পৌর শহরে কালীপুর মধ্যম তরফ এলাকায় নিজ বাসায় ইন্তেকাল করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহী রাজেউন)। এদিন বিকেল সাড়ে ৫ টায় নিজ কাজীপাড়া গ্রামে জানাযার নামাজের সময় নির্ধারণ করা হয়েছিল।
কাজী মোনায়েম ছিলেন সকলের প্রিয় একজন শিক্ষক। তাই এ জানাযার নামাজে শত শত লোক অংশগ্রহন করতে পারেন, এ বিষয়টি আঁচ করতে পেরে গৌরীপুর থানার পুলিশ নির্ধারিত সময়ের দেড় ঘন্টা আগেই জানাযার নামাজ পড়ানো ব্যবস্থা করেন। জানাযার নামাজ শেষে মরহুমের মরদেহ পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়েছে। এদিকে জানাযার নামাজে অংশগ্রহন করতে না পেরে স্থানীয় শত শত লোকজনকে ফিরে যেতে দেখা গেছে।

এ বিষয়ে গৌরীপুর থানার ওসি মোঃ বোরহান উদ্দিন জানান, জনসমাগম ঠেকাতে মরহুমের পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলে সমন্বয়ের মাধ্যমে নির্ধারিত সময়ের আগেই জানাযার নামাজ পড়ানো হয়েছে। এ কৌশল অবলম্বন ছাড়া জনসমাগম ঠেকানোর আর কোন উপায় ছিলনা বলে তিনি জানান।
কাজী এম এ মোনায়েম মৃত্যুকালে স্ত্রী, ২ ছেলে ও ১ মেয়েসহ অসংখ্য গুগগ্রাহী রেখে যান। তিনি দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন জটিল রোগে ভুগছিলেন।
তার জীবদ্দশায় দৈনিক সংবাদসহ অসংখ্য পত্রিকায় গৌরীপুর উপজেলা প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

সাংবাদিকতা পেশায় থাকাকালীন সময়ে কাজী এম এ মোনায়েম শিক্ষকতা পেশায় যোগদান করেন। গৌরীপুর সরকারি কলেজে দীর্ঘদিন বাংলা বিভাগের অধ্যাপক হিসেবে কর্তব্যরত ছিলেন তিনি। পরে ময়মনসিংহের আনন্দ মোহন কলেজ থেকে অবসর গ্রহন করেন। চাকুরি জীবন শেষে পুনরায় লেখা-লেখির সাথে জড়িত হন। সর্বশেষ গৌরীপুর থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক রাজ গৌরীপুর পত্রিকায় কলামিস্ট হিসেবে কাজ করেন তিনি।
কাজী এম এ মোনায়েম গৌরীপুরের ইতিহাস ঐতিহ্য ও কিংবদন্তিসহ বেশ কয়েকটি বইয়ের রচয়িতা।

আপনার মতামত লিখুন :