ঝিনাইগাতীতে চাল আত্মসাতের দায়ে চেয়ারম্যানসহ ২ ইউপি সদস্য স্থায়ী বরখাস্ত

উপজেলা প্রতিনিধি
প্রকাশিত : বুধবার ৯ ডিসেম্বর, ২০২০ /

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলায় ভিজিডির চাল আত্মসাতের ঘটনা প্রমাণিত হওয়ায় দুই সদস্যসহ এক ইউপি চেয়ারম্যানকে স্থায়ী বরখাস্ত করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ।

ঝিনাইগাতীর নলকুড়া ইউপি চেয়ারম্যান আইয়ুব আলীর বিরুদ্ধে ভিজিডির চাল আত্মসাৎ এবং টাকার বিনিময়ে স্বচ্ছলদের মাঝে চাল বিতরণ করাসহ বেশ কয়েকটি অভিযোগের সত্যতা প্রমাণ মিলেছে। অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ইউপি চেয়ারম্যান আইয়ুব আলীকে স্থায়ী বরখাস্ত করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। একই অভিযোগে ৭ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য খাইরুল এনাম চাঁন ও ৭, ৮, ৯ নং ওয়ার্ডের নারী সদস্য রহিমা বেওয়াকে স্বীয় পদ থেকে স্থায়ী বরখাস্তের আদেশ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ।

স্থানীয় সরকার বিভাগের উপসচিব ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী সাক্ষরিত এক চিঠিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। চিঠিতে ওই চেয়ারম্যানসহ দুই সদস্যের পদ শিগগিরই শূন্য করার ব্যপারেও জানানো হয়েছে।

স্থানীয় সরকারের তথ্যমতে, ইউপি চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী ও দুই ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধ পরস্পর যোগসাজশে ভিজিডির ১২৪টি কার্ডের বিপরীতে উত্তোলিত চাল দীর্ঘ ১৮ মাস ধরে আত্মসাৎ করার অভিযোগ এবং প্রকৃত কার্ডধারীদের মধ্যে ভিজিডির চাল বিতরণ না করে টাকার বিনিময়ে সচ্ছল ব্যক্তিদের ভিজিডি কার্ড প্রদানসহ অনৈতিকভাবে জি আর চাল বিতরণের কপিকে ভিজিডি কার্ড গ্রহণের রিসিভ কপি বলে ব্যবহারের অপচেষ্টার অভিযোগের প্রমাণ মিলেছে।

পরে এসব অভিযোগের তদন্তে প্রমাণ মেলায়, স্থানীয় সরকার আইন ২০০৯-এর ৩৪(১) অনুযায়ী গত ৩১ সেপ্টেম্বর তাদের সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। সেই সঙ্গে তাদের কেন চূড়ান্ত বা স্থায়ীভাবে বরখাস্ত করা হবে না, সে মর্মে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়। কারণ দর্শানোর জবাব সন্তোষজনক না হওয়ায় স্থানীয় সরকার আইন ২০০৯-এর ৩৪(৪) (ঘ) ধারা অনুযায়ী তাদের স্থায়ীভাবে বরখাস্তের প্রজ্ঞাপন জারি করে স্থানীয় সরকার বিভাগ।

আপনার মতামত লিখুন :