তিন উপ‌জেলার ক‌রোনার ২০০ নমুনা পরীক্ষা রির্পোট না পে‌য়ে কর্মকর্তরা হতাশ : সর্বত্র আতঙ্ক

সাব‌রিনা জান্নাত সূচনা
প্রকাশিত : সোমবার ২৭ এপ্রিল, ২০২০ /

ময়মনসিংহ জেলার গৌরীপুর ,ঈশ্বরগঞ্জ ও নান্দাইলের প্রায় ২০০ করোনার নমুনার পরীক্ষা আটকা পড়ে আছে। এ অবস্থায় ওই উপজেলার সন্দেহভাজন ব্যক্তিরা রয়েছেন এক ধরনের আতঙ্কে।
আজ (২৭ এ‌প্রিল) রোববার পর্যন্ত তিন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তারা নমুনা পাঠানোর রিপোর্ট না পেয়ে হতাশায় আছেন।

জানা যায়, গত ২০ এপ্রিলে গৌরীপুর উপজেলা থেকে ৪৯, ঈশ্বরগঞ্জ থেকে ৬৪ ও নান্দাইল থেকে ৭২ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। এ অবস্থায় গত এক সপ্তাহেও এই তিন উপজেলার নমুনা পরীক্ষার ফলাফল এসে পৌঁছায়নি। ফলে ঈশ্বরগঞ্জ ও নান্দাইল উপজেলায় আক্রান্ত হওয়াদের পরিবার ও স্টাফদের পাঠানো নমুনার কোনো তথ্য না আসায় এক ধরনের ধ্রুমজালের মধ্যে রয়েছে সাধারন লোকজন।
স্থানীয় সূত্র জানায়, ময়মনসিংহ বিভাগের চার জেলায় করোনাভাইরাস সংক্রমণের নমুনা পরীক্ষার জন্য কেবল ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের স্থাপিত পিসিআর ল্যাবই ভরসা। ফলে শুরু থেকে এই ল্যাবের চিকিৎসক ও টেকনিশিয়ানরা প্রতিদিন দুইটি শিফটে ৯৪টি করে মোট ১৮৮টি নমুনা পরীক্ষা করে যাচ্ছেন। ইদানিং নমুনা বেশি সংখ্যক আসায় সাত শতাধিক নমুনা এখনো পরীক্ষার জন্য অপেক্ষমান।

ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজের একটি সূত্র জানায়,কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগে পিসিআর ল্যাবে প্রতিদিন দুই শিফটে ১৮৮ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। তবে ইদানিং বেশি সংখ্যক নমুনা আসায় ইতিমধ্যেই সাত শতাধিক নমুনা পরীক্ষার জন্য অপেক্ষায় আছে। অধিক চাপের কারণে আরও ৫ শতাধিক নমুনা ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

গৌরীপুরের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা রবিউল হাসান জানান, গত ২০ ও ২১ এপ্রিল মোট ৪৯ জনের নমুনা পাঠানো হয়েছিল। এ অবস্থায় এখনো ফলাফল না আসায় নানান প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হচ্ছে।
ঈশ্বরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নুরুল হুদা খান জানান, এ পযন্ত মোট নমুনা পাঠানো হয়েছে ১১৩ জনের। তার মধ্যে ৬৪টি ফলাফলে ৭ জনের পজেটিভ পাওয়া গেছে। বাকি ৪৯ জনের ফলাফল পাওয়া যায়নি।

নান্দাইল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা ডা. ইকবাল আহম্মেদ নাসের জানান,মোট নমুনা পাঠানো হয়েছে ১০৩ জনের। তার মধ্যে দ্বিতীয় দফায় ১৫ জনের মধ্যে দুই জনের পজেটিভ পাওয়া গেছে। পরে পাঠানোদের নমুনার কোনো ধরনের ফলাফল এখনো এসে পৌঁছেনি। ফলে বন্ধ রয়েছে নমুনা পাঠানোর কার্যক্রম।

ময়মনসিংহ জেলা সিভিল সার্জন ডা. এবিএম মসিউল আলম জানান, এ জেলা থেকে এ পর্যন্ত এক হাজার ১৭৮টি নমুনা পরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। তার মধ্যে পরীক্ষা হয়েছে ৯১৮টি। বাকিগুলোর মধ্যে অনেক নমুনাই নষ্ট হয়েছে। সেগুলি পূনরায় করে পাঠানো হবে। তবে সকল নমুনার ফলাফল দুই একদিনের মধ্যে জানা যাবে বলে তিনি দাবি করেন।

আপনার মতামত লিখুন :