ধর্ষণ চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে স্ত্রীর ঠোঁট ছিঁড়ে নিল সাবেক স্বামী

প্রকাশিত: ১১:৫৪ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৮, ২০১৯

কুমিল্লায় জোড়পূর্বক তুলে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টায় যুবতীর ঠোট কামড়ে ছিড়ে নেয়া নরপশু সাবেক স্বামী আমির হোসেনকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। আমিরের নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচতে ডিভোর্স দিয়েও রক্ষা পেলেন না গৃহবধূ নার্গিস আক্তার (৩৫)।

জেলার তিতাসের সদরের কড়িকান্দি ইউনিয়নের কড়িকান্দি গ্রামে শুক্রবার বিকেলে এই ঘটনা ঘটে। আজ শনিবার (২৮ ডিসেম্বর) তিতাস থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। নার্গিস আক্তার ওই গ্রামের মো. মোশারফ হোসেনের একমাত্র মেয়ে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল শুক্রবার বিকেলে বাড়ি থেকে তিতাস হাসপাতালে যাওয়ার পথে সাবেক স্বামী নার্গিসকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। পরে তাকে জোর করে ধর্ষণচেষ্টাও করে। কিন্তু ধর্ষণ করতে না পেরে একপর্যায়ে কামড়ে নিচের ঠোঁট ছিঁড়ে নিয়ে যায়। এর আগে গত ২০১৭ সালের ২০ এপ্রিলে পরকিয়ার ফাঁদে পরে হোমনার চান্দেরচর ইউনিয়নের রামকৃষ্ণ পুরের মৃত আলী মিস্ত্রির ছেলে সিএনজি চালক মো. আমির হোসেনের (৩৭) সঙ্গে সামাজিকভাবে ১০ লাখ টাকা দেনমোহরে বিয়ে হয় নার্গিসের। কিন্তু বিয়ের পর দাম্পত্য জীবনে শুরু হয় বিপর্যয়। যৌতুকের জন্য শুরু হয় একের পর এক নির্যাতন। পিতা মো. মোশারফ হোসেন প্রথমে তিন লাখ টাকা দেন।

পরে আমির হোসেনকে বিদেশ যাওয়ার জন্য আরো পাঁচ লাখ টাকা যৌতুক হিসেবে দেন। সেই টাকা দিয়ে কুয়েতে পাড়ি জমায় আমির। সেখানেও নারী কেলেঙ্কারির ঘটনায় অল্প কিছুদিন পরই দেশে চলে আসে আমির। দেশে ফিরে আবার শুরু হয় নির্যাতন। তখন তার দাবি আরো পাঁচ লাখ টাকা। এই সব ঘটনায় আমিরকে ডিভোর্স দেওয়া সিদ্ধান্ত নেন নার্গিস। পরে ডিভোর্স দিয়ে নার্গিস আক্তার বাবার বাড়িতেই বসবাস করতে থাকেন।

এরপর গত ২৮ ডিসেম্বর সকালে নার্গিস আক্তার বাড়ি থেকে তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যাওয়া জন্য বাড়ি থেকে বের হন। পরে ওই আমির হোসেনসহ অজ্ঞাতনামা চার থেকে পাঁচ জন মিলে জোর করে তুলে নিতে চায়। কিন্তু তারা পারেনি। পরে জমিতে ফেলে সাবেক স্ত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা করে। ধর্ষণচেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে একপর্যায়ে মুখে কামড় দিয়ে নিচের ঠোঁট কেটে নিয়ে যায়। এই ঘটনার পর নার্গিসের চিৎকার শুনে আশেপাশের লোকজন চলে আসলে তারা দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে তাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

এ ব্যাপারে নার্গিসের বাবা মো. মোশারফ হোসেন বাদী হয়ে আজ বিকেল তিতাস থানায় মামলা রুজু করেন।

তিতাস থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ও মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা শ্রী মধুসূদন সরকার বলেন, মামলা নেওয়ার পর আসামি আমির হোসনকে গ্রেপ্তার করেছি।