নবজাতককে পানিতে ফেলে হত্যার পর অপহরণের নাটক সাঁজায় মা সাবিকুন্নাহার

আবদুল কাদির
প্রকাশিত : সোমবার ৯ আগস্ট, ২০২১ /

গভীর রাতে ২২ দিন বয়সের নবজাতককে পানিতে ফেলে হত্যার পর অপহরণের নাটক সাঁজায় মা সাবিকুন্নাহার।
ময়মনসিংহের তারাকান্দার বাসিন্দা সাবিকুন্নাহার রোববার (৮ আগস্ট) জেলা চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক দেওয়ান মনিরুজ্জামানের কাছে ১৬৪ ধারার জবানবন্দি দেন। জবানবন্দিতে শিশুপুত্র সাঈমকে পানিতে ফেলে হত্যার কথা এভাবে স্বীকার করেন তিনি। পরে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।ময়মনসিংহ চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের কোর্ট ইন্সপেক্টর প্রসূন কান্তি দাস সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

এর আগে সাবিকুন্নাহার শুক্রবার(৬আগস্ট)
দিবাগত রাত ৩ টার দিকে নবজাতককে বাড়ির পাশের পুকুরে ফেলে হত্যা করে। ওই দিন বেলা ১২ টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শিশুর মা সাবিকুন্নাহারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে।পরে বিকাল ৫ টার দিকে ওই শিশুর মরদেহ বাড়ির পাশের পুকুরে ভেঁসে উঠে।সে দিনই কথাবার্তায় অসংলগ্নতার কারণে পুলিশ সাবিকুন্নাহারকে আটক করে নিয়ে যায়।

তারাকান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের সাংবাদিকদের বলেন, সাবিকুন্নাহার রাত ৩টার দিকে নিজের শিশুসন্তানকে বাড়ির পাশের পুকুরের পানিতে ফেলে হত্যা করেন। হত্যার পর ঘটনা ধামাচাপা দিতে সাদা কাপড় পরা দুই নারী পানি খাওয়ানোর কথা বলে তার সন্তানকে নিয়ে গেছেন বলে দাবি করেন। পরে তাকে জিজ্ঞাসাবাদে কথাবার্তা অসংলগ্ন মনে হয়। এক পর্যায়ে স্বীকার করেন, জন্মের ২২ দিন পরও বুকে দুধ না আসায় অবসাদে ভুগে তিনি শিশুটিকে হত্যা করেন।

এ ঘটনায় রোববার (৮ আগস্ট) দুপুরে সাঈমের বাবা হুমায়ুন কবির তারাকান্দা থানায় অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিকে আসামি করে মামলা করেন। পরে ওই মামলায় সাবিকুন্নাহারকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

আপনার মতামত লিখুন :