পরিত্যক্ত বোতলে নির্মিত বাংলাদেশের মানচিত্র

প্রকাশিত: ৫:৪৭ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১১, ২০১৯

শীতের সময় যখন দেশের সব পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড় ঠিক তেমনি দিন দিন বেড়ে চলেছে ময়লার স্তুপ। পর্যটকদের ব্যবহৃত প্লাস্টিকের বোতল, পলিথিনসহ নানা উচ্ছিষ্ট বর্জ্যে সৌন্দর্য্য মলিন হচ্ছে এ শহরের বিভিন্ন পর্যটন স্পটগুলোতে। যেখানে নির্দিষ্ট ডাস্টবিন না থাকার কারণে যত্রতত্রভাবে ফেলা হয় ময়লা। এটিকে সচেতনতার অভাব হিসেবে দেখছেন স্থানীয়রা। এবার সাজেকসহ বিভিন্ন পর্যটন স্পট থেকে পর্যটকদের ব্যবহৃত প্রায় ৭৫ হাজার পরিত্যক্ত প্লাস্টিকের বোতল সংগ্রহ করে বিডি ক্লিন খাগড়াছড়ি সংগঠন। তারা ১০ দিন নিরবিচ্ছিন্নভাবে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার অংশ হিসেবে খাগড়াছড়ির আলুটিলাসহ গুরুত্বপূর্ণ পযর্টন স্পটে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান চালিয়ে সংগ্রহ করেছে আরও ২৫ হাজার পরিত্যক্ত বোতল।

বিডি ক্লিন খাগড়াছড়ির সদস্যরা জানান, সাজেক যাওয়ার পথে রাস্তার দু’দিকে গাড়ি থেকে ছুঁড়ে ফেলা হচ্ছে প্লাস্টিকের বোতল। যার ফলে সাজেক পাহাড়ের দু’দিকে পরিত্যক্ত বোতল ও পলিথিনের স্তুপ হয়েছে। অন্যদিকে, খাগড়াছড়ির আলুটিলাসহ জেলার বিভিন্ন স্থানে ফেলা হচ্ছে এসব বর্জ্য। যা অধিকাংশই অপচনশীল। যা পরিবেশের জন্য অত্যন্ত হুমকিস্বরুপ। মূলত অব্যবস্থাপনা ও অসচেতনতার কারণে এমনটা হচ্ছে বলে জানান তারা। বিডি ক্লিন-খাগড়াছড়ির সমন্নয়ক মো: শাহাদাত হোসেন কায়েস জানান, আমরা সাজেক ও খাগড়াছড়িতে বেশ কয়েকটি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার ইভেন্ট করে প্রায় ৭৫ হাজার পরিত্যক্ত বোতল সংগ্রহ করেছি। মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) সকালে খাগড়াছড়ি কদমতলী এলাকায় শুরু হয়েছে দু’দিনব্যাপী এ প্রদর্শনী। মূলত স্থানীয়দের সচেতন করতে এমন ভিন্নধর্মী উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

প্রদর্শনীতে দেখা যায়, বিভিন্ন রং এর পরিত্যক্ত বোতল দিয়ে তৈরি করা হয়েছে বাংলাদেশের মানচিত্র। যা উপস্থিত সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করছে। বোতল দিয়ে তৈরি করা হয়েছে কলমদানি, ফুলের টপ, ডাস্টবিনসহ নানা শোপিস। এছাড়া প্রদর্শনীতে বোতলকে রিসাইক্লিং করে কিভাবে তেল, গ্যাস উৎপাদন করা যায় সেটির প্রতীকী প্রদর্শনীও দেখানো হচ্ছে।