ফুলপুরে শ্বশুরবাড়ির নির্যাতনে গৃহবধূর মৃত্যু

উপজেলা প্রতিনিধি
প্রকাশিত : শনিবার ১ জুন, ২০১৯ /

ময়মনসিংহের ফুলপুরে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের নির্যাতনে খাদিজা খাতুন (২০) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় পুলিশ ওই গৃহবধূর শাশুড়ি আনোয়ারা খাতুনকে আটক করেছে। ঘটনার পর থেকে শ্বশুরবাড়ির অন্য সদস্যরা পলাতক রয়েছে। শুক্রবার রাতে উপজেলার বাতিকুড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের পরিবার ও স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার বাতিকুড়া গ্রামের খলিলুর রহমানের সঙ্গে ৮ মাস আগে একই উপজেলার আমুয়াকান্দা গ্রামের আব্দুল খালেকের মেয়ে খাদিজা খাতুনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই তাদের মাঝে বিভিন্ন বিষয়ে পারিবারিক কলহ দেখা দেয়। শুক্রবার রাতে স্বামী খলিলুর রহমান ও বাড়ির লোকজন সঙ্গে খাদিজার ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে তারা খাদিজার ওপর নির্যাতন করে। এতে সে অজ্ঞান হয়ে হয়ে গেলে রাতেই তাকে ফুলপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায় শ্বশুরবাড়ির লোকজন। এ সময় সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক খাদিজাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে হাসপাতালে খাদিজার মরদেহ রেখে তারা পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে ফুলপুর থানা পুলিশ হাসপাতাল থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

নিহত খাদিজার বাবা আব্দুল খালেক বলেন, পারিবারিকভাবেই তাদের বিয়ে হয়েছে। বিয়ের পর থেকেই আমার মেয়ের ওপর কারণে অকারণে অত্যাচার চলে আসছে। শুক্রবার রাতে স্বামী, শাশুড়ি, দেবর ও ননদ মিলে আমার মেয়েকে নির্যাতন ও শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে। আমি আমার মেয়ে হত্যার বিচার চাই।

ফুলপুর থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুমন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে- খাদিজাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে শ্বশুরবাড়ির লোকজন পলাতক রয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পর বিস্তারিত জানা যাবে। পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গৃহবধূর শাশুড়ি আনোয়ারা খাতুনকে আটক করেছে।

আপনার মতামত লিখুন :