বন্ধুর গলা কেটে পাশেই শুয়ে থাকলো তিন বন্ধু

জেলা প্রতিনিধি
প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার ৪ জুলাই, ২০১৯ /

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে কবির হোসেন (২০) নামে এক যুবককে মোটরসাইকেল চুরির পর গলা কেটে হত্যার চেষ্টা করেছে তারই তিন বন্ধু। বৃহস্পতিবার ভোররাতে উপজেলার সাতপোয়া ইউনিয়নের চর ছাতারিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই তিন বন্ধুকে আটক করেছে পুলিশ।

আটকরা হলেন- চকবালিয়া গ্রামের জুরান আলীর ছেলে সাকিল (১৯), নগদা গ্রামের হাফিজুরের ছেলে সোহান (২০) ও ধানাটা গ্রামের টিক্কা খানের ছেলে রবিন (১৯)

সরিষাবাড়ী থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) জোয়াহের হোসাইন জানান, বুধবার রাতে কবিরের তিন বন্ধু তার বাড়িতে যায়। কবিরসহ তিন বন্ধু মিলে রাতে নেশা করে। কবিরকে বেশি করে নেশা করিয়ে এক বন্ধুকে পাহারায় রেখে অন্য দুই বন্ধু কবিরের মোটরসাইকেল চুরি করে সিরাজগঞ্জের ভেটুয়া ঘাটে থাকা তাদের অন্য সহোযোগীর কাছে রেখে আসে। পরে তারা আবার কবিরের বাড়িতে ফিরে আসে।

মোটরসাইকেল চুরির বিষয়টি জানাজানি হবে এই ভয়ে ব্লেড দিয়ে ঘুমন্ত কবিরকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা করে তারা। এ ঘটনায় তাদেরকে আটক করা হয়েছে। চুরিকৃত মোটরসাইকেলটি উদ্ধারে অভিযান চলছে। কবিরের গলাকাটার পর রক্ত বের হতে দেখে তাদের মায়া লাগে তাই তাকে হত্যা করেনি বলে জানিয়েছেন ঘাতক রবিন।

কবিরের মা কল্পনা বেগম বলেন, সকালে কবিরকে ডাকতে গিয়ে দেখি তার পুরো শরীর কাঁথা দিয়ে ঢাকা। পাশে তিন বন্ধু শুয়ে আছে। ডাকাডাকির একপর্যায়ে সাড়া না দিলে আমি কবিরের গায়ে থাকা কাঁথা সরিয়ে দেখি গলা দিয়ে রক্ত বের হচ্ছে। আমি চিৎকার করলে লোকজন এসে কবিরকে হাসপাতালে নিয়ে যায় এবং ওই তিনজনকে আটকে রাখে। পুলিশ এসে তাদেরকে নিয়ে যায়।

আপনার মতামত লিখুন :