বাবার দান করা জমি ফিরিয়ে দিতে ছেলের হুমকী, মসজিদে জামাতে নামাজ পড়া বন্ধ

মশিউর রহমান কাউসার
প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০ /

মসজিদের নামে বাবার লিখে দেয়া জমি দিতে নারাজ ছেলে। জমি ফিরিতে দিতে মসজিদ পরিচালনা কমিটির লোকজন ও মুয়াজ্জিনকে দেয়া হচ্ছে নানা হুমকী। মসজিদের দরজায় ঝুলিয়ে দেয়া হয়েছে তালা। হুমকীর মুখে বর্তমানে মসজিদে জামাতে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়াতে আসেন না মুয়াজ্জিন। এদিকের শিশুদের মক্তবের শিক্ষা কার্যক্রম চলছে মুয়াজ্জিনের বাড়িতে। ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলার বাথুয়াদি গ্রামে বাগে জান্নাত জামে মসজিদের চিত্র এটি।
উল্লেখিত মসজিদের মুসল্লী স্থানীয় আব্দুল জব্বার ফকির জানান, ১৬ বছর আগে এ মসজিদটি প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রায় ১০ বছর আগে তাঁর ভাই মৃত আমজাদ ফকির এ মসজিদের নামে ৫ শতক জমি লিখে দিয়ে গিয়েছিলেন। সম্প্রতি ভাতিজা আবুল হাসিম মসজিদের নামে তার বাবার দেয়া জমি ফিরিয়ে নিতে কমিটির লোকজন ও মুয়াজ্জিনকে হুমকী প্রদানসহ নানা অপতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। এ কারনে মসজিদে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়াতে আসছেন না মুয়াজ্জিন। এ নিয়ে এলাকায় একাধিকবার দেন দরবারের আয়োজন করা হলেও দরবারে উপস্থিত হননি আবুল হাসিম।

মসজিদের মুয়াজ্জিন মোঃ রমজান আলী মুন্সী জানান, আবুল হাসিমের হুমকীর মুখে তিনি প্রায় দু’বছর ধরে মসজিদে আযান দিতে ও নামাজ পড়াতে আসেন না। এদিকে নিজ বাড়িতে মক্তবের শিশুদের পাঠদান কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছেন তিনি।

মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোঃ গোলাম রহমান ফকির জানান, বাবার দেয়া জমি ফিরিয়ে নিতে তাকে নানাভাবে হুমকী দিয়ে আসছেন আবুল হাসিম। এছাড়া মসজিদের দরজায় ঝুলিয়ে দেয়া হয়েছে তালা। সম্প্রতি তিনি মসজিদের জায়গা থেকে জোরপূর্বক দুটি গাছ কেটে নিয়ে গেছেন। আবুল হাসিমের হুমকীর মুখে মসজিদে দু’বছর ধরে জামাতের সঙ্গে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ানো বন্ধ রয়েছে। বর্তমানে স্থানীয় একজন খতিব নিজ উদ্যোগে মসজিদে শুধু জুম্মার নামাজ পড়াচ্ছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মসজিদের দরজায় তালা ঝুলানো ও হুমকী প্রদানের বিষয়টি অস্বীকার করে আবুল হাসিম জানান, তাঁর বাবা জীবিত থাকা অবস্থায় মসজিদের নামে ৫ শতক জমি লিখে দেয়ার বিষয়টি তাঁদেরকে জানায়নি। আর যে জায়গা থেকে তিনি গাছ কেটেছেন এটি মসজিদের জায়গা নয়।

আপনার মতামত লিখুন :