ভালুকায় মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের অভিযোগে ’বাংলাদেশ প্রতিদিন’এ আগুন ও সমাবেশ

গৌরীপুর নিউজ
প্রকাশিত : শনিবার ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৫ /

oooooমোঃ রফিকুল ইসলাম রফিক,বিশেষ প্রতিনিধি,ময়মনসিংহ থেকে ঃ পৌর নির্বাচনকে ঘিরে স্থানীয় এমপি অধ্যাপক ডাঃ এম আমানউল্লাহ নিয়ে বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রকাশ করার অভিযোগে ’দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন’পত্রিকার কপিতে আগুন দিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে আ’লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।বৃহস্পতিবার বিকেলে ভালুকা পুরাতন বাসস্ট্যান্ড চত্বরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে এ প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।এ সময় মহাসড়কের দু’পাশে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হলে এক পর্যায়ে পুলিশ এসে যান চলাচল স্বাভাবিক করে।সমাবেশে প্রতিবেদনের প্রতিবাদ প্রকাশ না হওয়া পর্যন্ত ভালুকায় বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকা বিক্রয় ও সরবরাহ বন্ধের আহ্বান জানায় বিক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা।

দলীয় সুত্র জানায়,বৃহস্পতিবার ’দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন’ পত্রিকায় সাবেক প্রতিমন্ত্রী ও স্থানীয় এমপি অধ্যাপক ডাঃ এম আমানউল্লাহসহ আ’লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের একটি অংশের ভুমিকা নিয়ে পৌর নির্বাচন সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়।এ সংবাদে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়ার অংশ হিসেবে আ’লীগ,যুবলীগ,ছাত্রলীগ, শ্রমিকলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ,মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগসহ বিভিন্ন সহযোগী সংগঠন বৃহস্পতিবার বিকেলে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি নতুন বাসস্ট্যান্ড থেকে শুরু হয়ে ভালুকা পুরাতন বাসস্ট্যান্ডে এসে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে সমাবেশে মিলিত হয়।এ সময় বিক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকার বেশ কিছু কপিতে অগ্নিসংযোগ করে পত্রিকা পুড়িয়ে দেয়।পত্রিকা পোড়ানো শেষে মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ শুরু করে তারা।সমাবেশে উল্লেখিত সংবাদটিকে মিথ্যা,ভিত্তিহীন ও বানোয়াট আখ্যায়িত করে বক্তাগন বলেন,স্থানীয় এমপি’র বিরুদ্ধে অপপ্রচারের উদ্যেশ্যে এ সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে।তারা পাল্টা অভিযোগ করে বলেন,এমপি ও মন্ত্রীরা নির্বাচনী প্রচারনায় অংশ নিলে আচরন বিধি লংঘনের অভিযোগ উঠবে।তিনি এলাকায় না থেকেও সার্বক্ষনিক দলীয় প্রার্থীর পক্ষ্যে নির্বাচনী মনিটরিং করে যাচ্ছেন এবং নেতা-কর্মীদেরকে দিক নির্দেশনা দিচ্ছেন বলে উল্লেখ করেন বক্তাগন।এমতাবস্থায় বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রকাশ না করতে সংবাদকর্মীদের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়। তারা প্রতিবাদ না প্রকাশ করা পর্যন্ত দৈনিক বাংলাদেশ পত্রিকা ভালুকায় বিক্রয় ও সরবরাহ বন্ধ রাখতে স্থানীয় পত্রিকা এজেন্সিদের প্রতি আহ্বান জানান।সমাবেশ চলাকালে মহাসড়কের উভয় পার্শ্বে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।এতে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হলে এক পর্যায়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে যান চলাচল স্বাভাবিক করার চেষ্ঠা শুরু করে।এ সময় ক্ষুব্ধ কর্মীরা পুলিশের প্রতি উত্তেজিত হয়ে উঠলে নেতাদের হস্তক্ষেপে তা নিরসন হয়।এ সময় সমাবেশ সংক্ষিপ্ত করে মহাসড়কের যানচলাচল স্বাভাবিক করা হয়।সমাবেশে আব্দুর রশিদ,জালাল উদ্দিন পাঠান,সাদিকুর রহমান তালুকদার,হাজী আব্দুর রহমান,রওনাক শিহাব রব্বানী খাজা,ইকবাল তালুকদার,আঃ জলিল,লুৎফে ওয়ালী রব্বানী অলি,মনিরুজ্জামান মামুন,শাহরিয়ার হক সজিব,মাহমুদুর রহমান সোহাগ,রাফাত তালুকদার সহ আ’লীগ ও সহযোগী সংগঠনের উপজেলা,পৌর শাখার নেতা-কর্মীগন অংশ নেন ।

আপনার মতামত লিখুন :