ভালুকায় স্বাবেক স্ত্রীকে হত্যা, রক্তমাখা চাকু ও কাপরসহ স্বামী গ্রেপ্তার

উপজেলা প্রতিনিধি
প্রকাশিত : বুধবার ১১ মার্চ, ২০২০ /

ময়মনসিংহের ভালুকায় হেনা আক্তার (৪১) নামের গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যা ঘটনায় সাবেক স্বামী আবদুল মতিনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ সময় মতিনের কাছ থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত রক্তমাখা চাকু ও হত্যার সময় মতিনের পরিধেয় রক্তমাখা কাপড় উদ্ধার করা হয়।

বুধবার (১১ মার্চ) দুপুরে ত্রিশাল থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে ভালুকা মডেল থানায় পুলিশ।

জানা যায়, নিহত হেনা উপজেলার ভরাডোবা ইউনিয়নের নিশিন্দা গ্রামের শেখ চাঁন মন্ডলের মেয়ে। সে তিন সন্তানের জননী। হেনা সাবেক স্বামী ভালুকা উপজেলার মেদুয়ারী ইউনিয়নের কুমারঘাটা গ্রামের আবদুল মতিনকে ছেড়ে ননদের জামাই রফিকুল ইসলাম রবিকে বিয়ে করে।

পুলিশ জানায়, গত রবিবার (১ মার্চ) সকালে উপজেলার মেদুয়ারী ইউনিয়নের কুমারঘাটা গ্রামের স্বামী রফিকুল ইসলামের বাড়ির পাশের একটি বাঁশের ঝাড় থেকে গলা কাটা ওই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

পরে ওইদিন রাতে হেনা আক্তারের ভাই মোর্শেদ মন্ডল বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামী করে ভালুকা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

হেনা আক্তার গত ২৯ ফেব্রুয়ারি (শনিবার) দুপুরে একই গ্রামে মেয়ের বাড়িতে বেড়াতে আসেন এবং রাতে মেয়ের শাশুড়ি সমলা খাতুনের সাথে তার ঘরে ঘুমান।

পরদিন রবিবার (১ মার্চ) স্বামী রফিকুল ইসলামের বাড়ির পাশের একটি বাঁশের ঝাড় থেকে হেনা আক্তারের লাশ উদ্ধার করে থানা পুলিশ।

হেনা আক্তারের সাবেক স্বামী আবদুল মতিনকে গ্রেপ্তারের সত্যতা নিশ্চিত করে ভালুকা মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ মাঈন উদ্দিন বলেন, ঘটনার পর থেকে আবদুল বিভিন্ন এলাকায় পালিয়ে বেড়াচ্ছিলেন। মোবাইল ফোন ব্যবহার না করা আবদুল মতিনকে ঘটনার ১১ দিন পর আমরা গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হই। আব্দুল মতিনকে আগামীকাল আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হবে বলেও জানান তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :