মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের দাবিতে গৌরীপুরে মানববন্ধন

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশিত : শুক্রবার ২৪ মে, ২০১৯ /

সরকারের বিশেষ প্রকল্পের অংশ হিসাবে ময়মনসিংহ জেলার গৌরীপুরে মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের দাবিতে পৃথক দু’টি মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (২৪ মে) বাদ জুমা পৌর শহরে এলাকাবাসী ও মুসল্লিরা ঘণ্টাব্যাপী এই কর্মসূচি পালন করেন।

শহরের উত্তরবাজারে বায়তুল আমান জামে মসজিদের জায়গায় মডেল মসজিদ নির্মাণের দাবিতে ‘গৌরীপুরের সর্বস্তরের মুসল্লীগণ’ শীর্ষক ব্যানারে মানববন্ধন করা হয়।

এতে বক্তব্য দেন বায়তুল আমান জামে মসজিদের ইমাম শামছুল হক, মসজিদ কমিটির সভাপতি ইউসুফ আলী, সাধারণ সম্পাদক আবুল মনসুর, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মহব্বত আলী চৌধুরী সবুর, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ রফিকুল ইসলাম দিপু, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য আবু কাউছার চৌধুরী রন্টি, পৌর কাউন্সিলর মাসুদ মিয়া রতন, আব্দুল কাদির, পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এনামুল হক সরকার প্রমুখ।

অপরদিকে গৌরীপুর সরকারি কলেজ জামে মসজিদের জায়গায় মডেল মসজিদ নির্মাণের দাবিতে পৌর শহরের কালীপুর মধ্যমতরফ এলাকায় এলাকাবাসী মানববন্ধন করেন।

এতে বক্তব্য দেন গৌরীপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, বোকাইনগর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান হাবিবুল ইসলাম শহীদ, আল-মাদরাসতুল নূরুল উলুমের মুহতামিম ফরিদ উদ্দিন, কালীপুর মসজিদুল আমানের খতিব শামছুল আলম ভুইয়া ওরফে হালিম হুযুর, সাবেক পৌর কমিশনার আব্দুল জলিল মুনশী, গৌরীপুর সরকারি কলেজের সাবেক ভিপি মাহবুবুর রহমান শাহীন, সাবেক জিএস আলী আকবর আনিছ, সাবেক এজিএস ইলিয়াস উদ্দিন প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, গত ২৮ এপ্রিল গৌরীপুর পৌর শহরের উত্তরবাজারে বায়তুল আমান জামে মসজিদের জায়গায় উপজেলা মডেল মসজিদ নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেন ময়মনসিংহ-৩ আসনের সংসদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন আহমেদ।

কিন্তু প্রস্তাবিত ভূমি মধ্যে সাড়ে ৫ শতাংশ দলিল মূলে ও ১০ শতাংশ বাইনামূলে মালিক মো. আক্কাস আলী ভূইয়া ও তার সহোদর মো. মাহমুদ হাসান ভূইয়া ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব বরাবর পাকা দোকান ও বসতবাড়িসহ তাদের ভূমি ভূমি অধিগ্রহণ না করার আবেদন করেন।

এমতাবস্থায় গত ৭ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মহাপরিচালক-৩ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক সভায় চট্টগ্রাম, বরিশাল ও ময়মনসিংহ জোনের নির্বাচিত তিনটি জায়গা নিয়ে আদালতে রীট হওয়ায় জরুরি ভিত্তিতে রীট নিষ্পত্তির অপেক্ষায় না থেকে বিকল্প জায়গা চিহ্নিত করে দ্রুত সমাধানের ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত হয়। সে মোতাবেক ময়মনসিংহের গৌরীপুরে মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের প্রস্তাবিত জায়গার পরিবর্তে জরুরি ভিত্তিতে দানকৃত/খাস/সরকারি জায়গার পুন:প্রস্তাব প্রেরণের জন্য জেলা প্রশাসককে অনুরোধ জানায় প্রকল্প পরিচালক।

এদিকে ধর্ম সচিব মো. আনিসুর রহমান প্রকল্প পরিচালককে গৌরীপুর সরকারি কলেজ মসজিদের জায়গায় মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের জন্য জায়গা প্রদানের প্রস্তাবনা নিয়ে একটি প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন। গত ১৫ মে প্রকল্প পরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম সরেজমিন পরিদর্শন করেন।

জেলা প্রশাসক ড. সুভাষ চন্দ্র বিশ্বাস জানান, জমির মালিক আদালতে রীট করায় মডেল মসজিদ নির্মাণের বিষয়টি এখনো চূড়ান্ত হয়নি। রীট নিষ্পত্তি না হওয়ায় পর্যন্ত কিছু করা যাচ্ছে না। গৌরীপুর সরকারি কলেজের জায়গায় মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের জন্য আবেদন করা হয়েছে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্তৃপক্ষ সরেজমিন পরিদর্শন করে উপযুক্তস্থান নির্বাচন করে সুপারিশ করলে পুণ:প্রস্তাব প্রেরণ করা হবে বলে জানান তিনি।

প্রকল্প পরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম জানান, হাইকোর্টে রীট করার কারণে গৌরীপুরে মডেল মসজিদ নির্মাণ প্রকল্পটি ঝুলে পড়েছে। দু’টি জায়গায় মসজিদ নির্মাণের আবেদন করা হয়েছে। কোথায় মসজিদ নির্মাণ করা হবে এটা এখনো চূড়ান্ত হয়নি। জেলা প্রশাসককে উপযুক্ত জায়গা দেখে পুণ:প্রস্তাব প্রেরণের জন্য বলা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :