মোহনগঞ্জ থেকে গীতিকার জীবন মাহমুদ অচেতন অবস্থায় উদ্ধার

গৌরীপুর নিউজ
প্রকাশিত : শনিবার ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ /

মশিউর রহমান কাউসার ও শামীম খান :
জনপ্রিয় গীতিকার তোফায়েল আলম ওরফে জীবন মহামুদ (৩৮) কে নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ থানার চেচরাখালি এলাকা থেকে শনিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করেছেন মোহনগঞ্জ থানার পুলিশ। জীবন মাহমুদের ছোট ভাই আবু রায়হান সাংবাদিকদের এ বিষয়ে নিশ্চিত করেছেন। গৌরীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান উদ্ধারের পর জ্ঞান ফিরে আসলে উনার সাথে কথা হয় জীবন মাহমুদের। এসময় তিনি বলেন ঘটনাদিন রাতে গৌরীপুর রেলস্টেশনে যাওয়ার পথে স্টেশন সংলগ্ন নতুন বাজার এলাকায় অজ্ঞাত ৪/৫ জন ব্যক্তি তার মুখে মেডিসিন মিশ্রিত রুমাল চেপে ধরে অচেতন করে ফেলে। পরে তার হাত-পা ও মুখ বেঁধে সিএনজিযোগে মোহনগঞ্জ নিয়ে একটি অন্ধকার ঘরে রাখে। পরদিন তাকে মোহনগঞ্জ থানার চেচরাখালি নামক এলাকায় অচেতন অবস্থায় রাস্তার ধারে ফেলে রেখে যায়। পরে খবর পেয়ে মোহনগঞ্জ থানার পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করেন।
উল্লেখ্য জীবন মাহমুদ তাঁর নিজ এলাকা ময়মনসিংহের গৌরীপুর পৌর শহর থেকে শুক্রবার (১৪ সেপ্টেম্বর) রাত ১০টা থেকে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ ছিলেন। এ ঘটনায় তাঁর ছোট ভাই আবু রায়হান (২৬) পরদিন সকালে গৌরীপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়রী করেছেন (ডায়রী নং-৫৪৪ তাং-১৫/০৯/১৮)। জীবন মাহমুদ গৌরীপুর উপজেলার শালীহর গ্রামের মৃত হাজী মহব্বত আলীর ছেলে। বর্তমানে তিনি গৌরীপুর পৌর শহরে নতুন বাজার এলাকায় পরিবারের সদস্যদের নিয়ে বসবাস করছিলেন। শহরের মধ্য বাজার এলাকায় তাঁর আই ফ্যাশন নামে একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।
আবু রায়হান জানান তার ভাই জীবন মাহমুদ শুক্রবার রাত আনুমান ১০টার দিকে ট্রেনের টিকিট কাটার উদ্দেশ্যে নতুন বাজারের বাসা থেকে বের হয়। এরপর তিনি আর বাসায় ফিরেননি। বাসা থেকে বের হওয়ার সময় জীবন মাহমুদ তার স্ত্রীকে বলেছিলেন, ঢাকা থেকে আমার একজন গেষ্ট আসবেন, টিকিট কাটা শেষে উনাকে নিয়ে বাসায় এসে একসাথে রাতের খাবার খাবেন। তিনি বলেন রাত ১২ টা পর্যন্ত তার ভাই বাসায় ফিরে না আসায় পরিবারের লোকজন খুঁজাখুঁজি করে কোথাও তাঁর সন্ধান পাননি। এসময় তার মুঠোফোনে বারবার কল করা হলেও তা রিসিভ করেননি। রাত আড়াইটা পর্যন্ত তাঁর ব্যবহৃত ০১৯৫০-৩০৪৩৯১ এ মোবাইল নাম্বারটি খোলা ছিল, এরপর থেকে সংযোগটি বন্ধ রয়েছে। পরদিন শনিবার সকালে এ নিখোঁজের ঘটনায় তিনি গৌরীপুর থানায় সাধারণ ডায়রী করেন। তিনি আরো বলেন তাঁর ভাই জীবন মাহমুদ একজন সহজ সরল প্রকৃতির সামাজিক ব্যক্তি ছিলেন। এলাকায় তিনি এবং তাঁর পরিবারের সদস্যদের সাথে কারো বিরোধ ছিলনা।

আপনার মতামত লিখুন :