ময়মনসিংহের বেতনের জন্য ছাত্রকে পিটিয়ে আটকে রাখায় শিক্ষক গ্রেফতার

জেলা প্রতিনিধি
প্রকাশিত : শুক্রবার ৩১ মে, ২০১৯ /

ময়মনসিংহের সদর উপজেলায় বেতন দিতে না পাড়ায় তাওহিদ (১০) নামে এক মাদ্রাসা ছাত্রতে বেধরক পিটিয়ে মাদ্রাসায় তালাবদ্ধ করে রাখল শিক্ষক। এ ঘটনায় মাদ্রাসার এক শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ঘটনাটি ঘটে সদর উপজেলার শম্ভুগঞ্জের মদিনা নগর এলাকার মারকাযুল কুরআন জামিয়া হোসাইনিয়া কাসিমুল উলুম মাদ্রাসায়।

তাওহিত সদর উপজেলার ৬নং চর ঈশ্বরদিয়া ইউনিয়নের হরিপুর গ্রামের এবাদুল মিয়ার ছেলে।

গ্রেফতারকৃত আব্দুর রশিদ মারকাযুল কুরআন জামিয়া হোসাইনিয়া কাসিমুল উলুম মাদ্রাসার মুহতামিম।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, গত বুধবার (২৮ মে) দ্বিবাগত রাতে মাদ্রাসার বেতন দিতে না পাড়ায় তাওহিদকে পিটিয়ে মাদ্রাসার একটি কক্ষে তালাবদ্ধ করে রাখে মাদ্রাসা শিক্ষক ক্বারী হাবিবুল্লাহ।

পরের দিন (২৯ মে) বৃহস্পতিবার সকালে মাদ্রাসা ঈদের ছুটি দিয়ে দিয়ে দেয়। মাদ্রাসা ঈদের ছুটি দিয়ে মুহতামিম আব্দুর রশিদ অভিযুক্ত শিক্ষক ক্বারী হাবিবুল্লাহকে মাদ্রাসা থেকে ছটকে পড়তে বলে।

এদিকে মাদ্রাসা ছুটি হয়ে গেলেও তাওহিদ বাড়িতে না যাওয়ায় শুক্রবার (৩১ মে) সকালে মাদ্রাসায় খোঁজ নিতে আসে তার বাবা এবাদুল। স্থানীয় মাদ্রাসার ছাত্রদের কাছে তাওহিদকে মাদ্রাসায় পিটিয়ে তালাবদ্ধ করে আটকে রাখার বিষয়টি জানতে পেরে স্থানীয়দের নিয়ে মাদ্রাসার মুহতামিম আব্দুর রশিদকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তাওহিদকে মাদ্রাসার একটি কক্ষ থেকে বের করে দেয়।

এ সময় স্থানীয়রা পুলিশে খবর দিলে পুলিশ গিয়ে তাওহিদকে উদ্ধার করে থানায় আসে।

কোতোয়ালী থানার ওসি মাহমুদুল ইসলাম জানান, মাদ্রাসা থেকে তালাবদ্ধ অবস্থায় ছাত্রকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানে হয়েছে।

এ ঘটনায় এক মাদ্রাসা শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :