ময়মনসিংহে কওমী মাদ্রাসায় তালা, এতিম শিশুদের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ!

গৌরীপুর নিউজ
প্রকাশিত : রবিবার ৯ জুন, ২০১৯ /

প্রায় ৮০ জন হতদরিদ্র ও এতিম শিক্ষার্থীদের উচ্ছেদ করে কওমী মাদ্রাসা বন্ধ করার পায়তারা করছে স্থানীয় একটি চক্র। তালা দিয়ে বন্ধ করা হয়েছে প্রতিষ্ঠাটি। দাদার ওয়াকফ করা জমি দখল করতে এ চক্রান্তে নেমেছে নাতি।

ঘটনাটি ঘটেছে ময়মনসিংহ সদর উপজেলার ১১ নং ঘাগড়া ইউনিয়নের পাড়াইল ইমামপাড়া এলাকার “মাদ্রাসায়ে আবু বকর মোমেনশাহী” মাদ্রাসায়।

জানা যায়, এলাকার শিশুদের ইসলাম শিক্ষার উদ্দেশ্যে ১৯৮৪ সালের ২২ মার্চে ৫২ শতাংশ জমি ওয়াকফ করে দেন মরহুম নশের আলী মন্ডল। পরে সেখানে স্থানীয়দের সহায়তায় হতদরিদ্র ও এতিম শিশুদের ইসলামি শিক্ষার জন্য গড়ে উঠে মাদ্রাসায়ে আবু বকর মোমেনশাহী নামে একটি কওমী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

বর্তমানে মাদ্রাসাটিতে ৩৫ জন মেয়ে ৪৫ জন ছেলে শিক্ষার্থী পড়ালেখা করছে। প্রতি বছর এ মাদ্রাসা থেকে প্রায় ৬ জন করে কোরআনের হাফেজ শিক্ষা গ্রহন করে পাগড়ী নিয়ে বের হচ্ছেন। তবে মাদ্রাসাটি জবর দখল করতে দাতা মরহুম নশের আলী মন্ডলের নাতি আতাউর রহমান ও তার ছেলে আরাতুল বিভিন্ন চক্রান্ত চালাচ্ছে। মাদ্রাসার প্রিন্সপাল মোঃ আনোয়ার হোসেনের নামে বিভিন্ন পপাগান্ডা চালিয়ে বিতারিত করারও পায়তারা চালাচ্ছে তারা।

এলাকাবাসী একাধিকবার বিষয়টি নিয়ে তাদের সাথে কথা বললেও গত ৩ জুন এতিম শিশুদের বের করে দিয়ে মাদ্রাসায় তালা লাগিয়ে দেন আতাউর রহমান ও তার ছেলে।

এবিষয়ে আইনি সহায়তা চেয়ে আতাউর রহমান ও তার ছেলের নামে কোতোয়ালী মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন মাদ্রাসাটির প্রিন্সিপাল মোঃ আনোয়ার হোসেন। যার তদন্তভার দেয়া হয়েছে এসআই মাহবুব অর রশিদকে।

আপনার মতামত লিখুন :