শেষ মুহূর্তে বাণিজ্যমেলার প্রস্তুতি চলছে পুরোদমে

প্রকাশিত: ১২:১৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৬, ২০১৯

বুধবার সকালে তখনও সূর্য ওঠেনি। সকাল ৭টা। শীতে যখন সবাই যবুথবু হয়ে বিছানায় তখন আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা প্রাঙ্গণে এক দল কর্মব্যস্ত লোক। কেউ মালামাল আনা-নেওয়া আর কেউবা রঙ-তুলির শেষ আঁচড় দিচ্ছে প্যাভিলিয়নে। খট খট শব্দ চারপাশে। ফুরসত নেই কারও। বেশিরভাগ প্যাভিলিয়নের মূল অবকাঠামো তৈরি শেষ। এখন শুধু বাকি ডেকোরেশন করার।

বাণিজ্যমেলার ভিআইপি গেট দিয়ে প্রবেশ করতে সামনেই পরড়ে রংপুর কারুপণ্যের প্যাভিলিয়ন। দৃষ্টিনন্দন ডিজাইন করা হয়েছে। বাঁশের চ্যারা, কাঠ, আর ছনের কাঠি, লোহার স্টাকচারে দারিয়ে দুইতলা প্যাভিলিয়ন। স্টলে কর্মরত আজাদ ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘যেহেতু এটা কারুপণ্যের প্যাভিলিয়ন তাই গ্রামীণ ঐতিহ্য তুলে ধরা হয়েছে। দেয়ালে আমরা বাঁশের ব্যবহার বেশি করেছি।’

রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা-২০২০ শুরু হবে পয়লা জানুয়ারি। মাসব্যাপী এ মেলা চলবে। মেলার মাঠ ঘুরে দেখা যায়, প্যাভিলিয়নগুলোর প্রধান অবকাঠামো তৈরি হয়ে গেছে। এখন রঙ-তুলির আঁচরে সাজছে। আর স্টলগুলো তৈরি হচ্ছে। এবার জাতীয় স্মৃতিসৌধের আদলে তৈরি হচ্ছে মেলার প্রধান গেট।

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এবারের মেলার প্রধান ফটক তৈরি করা হচ্ছে জাতীয় স্মৃতিসৌধের আদলে।

প্রস্তুতির বিষয়ে জানতে চাইলে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) উপ-পরিচালক ও মেলার সদস্য সচিব ও মো. আবদুর রউফ বলেন, ‘মুজিববর্ষ উপলক্ষে বিশেষ প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে। প্রধান ফটক আমরা জাতীয় স্মৃতিসৌধের আদলে তৈরি করছি। এতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি থাকবে। আশা করি, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কাজ শেষ হবে।’

বাংলাদেশ ছাড়াও ২০টি দেশ এবারের মেলায় অংশ নেবে। মেলায় এবার সব মিলে ৪৫০টি প্যাভিলিয়ন থাকছে। এর মধ্যে আন্তর্জাতিক প্যাভিলিয়ন ৫৫টি। মেলার মাঠ বালি দিয়ে ঢেকে দেয়া হয়েছে। বালির ওপরে ইট বিছানো হচ্ছে।

ঢাকায় এ মেলা চলছে দুই যুগ ধরে। এর মধ্যে গত ১৮ বছর ধরে মেলায় অংশ নিচ্ছে দেশের সর্ববৃহৎ ইলেকট্রনিক্স ও ইলেকট্রিক্যাল পণ্য প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন। অন্যবারের মতো এবারও বিশেষ চমক থাকছে এ প্রতিষ্ঠানের।

এবার বাণিজ্যমেলায় তিনতলা বিশিষ্ট দুটি নয়নাভিরাম সুদৃশ্য প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়ন থাকছে ওয়ালটনের। এতে ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ খ্যাত এ প্রতিষ্ঠানের নানা প্রযুক্তিপণ্য প্রদর্শন ও বিক্রি করা হবে।

বাণিজ্যমেলায় ওয়ালটন প্যাভিলিয়ন পরিচালনার দায়িত্বে থাকা প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক মো. হুমায়ুন কবীর বলেন, প্রতিবারই ওয়ালটন বাণিজ্যমেলায় ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের জন্য নতুন নতুন চমক দিয়ে থাকে। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। এবার আমাদের বড় চমক হচ্ছে দুটি প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়ন। যা মেলার দুই যুগের ইতিহাসে অন্যতম। প্যাভিলিয়নের বাইরের দিকে যে দুটি বড় পর্দার এলইডি স্ক্রিন তৈরি করা হয়েছে সেখানে ওয়ালটন পণ্যের অত্যাধুনিক উৎপাদন প্রক্রিয়া এবং করপোরেট ডক্যুমেন্টারি প্রদর্শিত হবে। এতে করে, মেলায় আগত ক্রেতা-দর্শনার্থীরা ওয়ালটন পণ্যের উৎপাদান সম্পর্কে বাস্তুব জ্ঞান পাবেন।