১০ চিকিৎসক-নার্স করোনা আক্রান্ত, হাসপাতাল রোগী শূন্য

জেলা প্রতিনিধি
প্রকাশিত : মঙ্গলবার ২১ এপ্রিল, ২০২০ /

ময়মনসিংহে করোনা আক্রান্তদের মধ্যে সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্স রয়েছেন ১০ জন। এর মধ্যে গফরগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকসহ নয়জন এবং বাকি একজন মুক্তাগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সর সিনিয়র নার্স।

ময়মনসিংহ মেডিকলে কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের পিসিআর ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় গত রোববার পর্যন্ত প্রকাশিত ফলাফলে এ তথ্য পাওয়া যায়। এদিকে রোববার মুক্তাগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একজন সিনিয়র নার্স কোভিড-১৯ পজিটিভ শনাক্ত হওয়ায় ওই হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্সসহ সকল সেবাকর্মীদের মাঝে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে। ওই নার্স হাসপাতালে কর্তব্যরত থাকায় এবং শনাক্তের দিন পর্যন্ত হাসপাতালে থাকায় এই আতঙ্ক আরো জেঁকে বসেছে স্বাস্থ্য কর্মীদের মাঝে। সহকর্মী নার্সদের অনেকেই অজান্তে তার সংস্পর্শে এসেছিল বলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক চিকিৎসাকর্মী জানিয়েছেন।

এদিকে আক্রান্ত শনাক্তের পর তাকে ময়মনসিংহের এসকে হাসপাতালের আইসোলেশানে নেওয়া হলেও দিনভর তার সংস্পর্শে আসা চিকিৎসক নার্সদের কোয়ারেন্টাইনে থাকা বা অন্যকোনো বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। তাদের সকলকেই নিয়মিত ডিউটি পালন করতে বলা হয়েছে। এতে কর্মরত নার্সদের মাঝে ব্যাপক আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

এ ব্যাপারে সেখানকার কর্মরত নার্সরা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকতা ডা. জান্নাতুল ফেরদৌসকে বললে তিনি কোনো ব্যবস্থা না নিয়ে বরং তাদেরকে নিয়মিত দায়িত্ব পালন করতে বলেছেন। এতে করে স্টাফদের পাশাপাশি আগত অন্য রোগীদের মাঝেও ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার প্রবল ঝুঁকি রয়েছে বলে বিভিন্নজন জানিয়েছেন।

তবে সিভিল সার্জন ডা. এবিএম মসিউল আলম জানিয়েছেন, ‘ওই নার্সের হিস্টোরি আমরা নিচ্ছি। তার সংস্পর্শে যারা ছিল তাদেরকে কোয়ারান্টাইনে নেওয়া হবে।’

অপরদিকে গফরগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এখন পর্যন্ত সেখানে নয়জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এমন অবস্থায় ৫০ শয্যার এ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটিতে নেই কোনো রোগী। ফাঁকা পড়ে আছে বেড। এমনকি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বহির্বিভাগও। শুধু জরুরি বিভাগ চালু রাখা হয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. মাইন উদ্দিন খান জানান, তিনজন চিকিৎসক, দুইজন নার্স ও একজন হিসাব রক্ষক এবং তিনজন সাব এসিসট্যান্ট কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

আপনার মতামত লিখুন :