১২ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে ৫৫ বছরের বৃদ্ধ গ্রেফতার

প্রকাশিত: ৭:১৫ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১, ২০১৯

বরিশালের গৌরনদী উপজেলার দক্ষিণ চাদশী এলাকায় ১২ বছর বয়সী এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে শহিদ সরদার (৫৫) নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার ভোরে গৌরনদী থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতার শহিদ সরদার উপজেলার দক্ষিণ চাদশী এলাকার মৃত সৈয়দ আলী সরদারের ছেলে। রোববার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

এর আগে শনিবার রাতে ভুক্তভোগী শিশুটির মা বাদী হয়ে গৌরনদী থানায় মামলা করেন।

মামলার অভিযোগে ওই শিশুর মা জানান, তার স্বামী পেশায় একজন দিনমজুর। তিনি নিজেও অন্যের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করেন। গত ৩০ জুলাই সকালে কাজের জন্য তারা (স্বামী-স্ত্রী) বাসা থেকে বের হন। এ সময় তার মেয়েকে ঘরে একা পেয়ে গামছা দিয়ে মুখ বেঁধে তাকে ধর্ষণ করে তিন সন্তানের জনক শহিদ সরদার। ধর্ষণের ফলে শিশুটির রক্তক্ষরণ শুরু হয়। এর মধ্যে স্বামী-স্ত্রী এসে পড়লে শহিদ সরদার কৌশলে পালিয়ে যায়। বিষয়টি তারা এলাকার মাতব্বরদের জানিয়ে মেয়ের চিকিৎসা করান। পরে মামলা করতে চাইলে স্থানীয় ইউপি মেম্বার আবুল হোসেন ও নাসির সরদারসহ প্রভাবশালীরা সালিশ-বৈঠকের নামে সময়ক্ষেপণ করেন। তাদের আকুতিতে সম্প্রতি আলাউদ্দিন সরদারের বাড়িতে সালিশ-বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ওই সালিশে ধর্ষক শহিদকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

শিশুর মা বলেন, আমরা টাকা চাইনি। আমরা ধর্ষক শহিদের শাস্তি চেয়েছিলাম। তারা (মাতব্বররা) সালিশ-বৈঠকের নামে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেছিল। তবে আমরা থানায় মামলা করেছি।

গৌরনদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম সরোয়ার জানান, শনিবার রাতে নির্যাতনের শিকার শিশুর মা বাদী হয়ে শহিদ সরদারসহ দুজনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। পরে রোববার ভোরে অভিযান চালিয়ে শহিদ সরদারকে গ্রেফতার করা হয়। আজ দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। অন্য আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এছাড়া ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শিশুটিকে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।