ময়মনসিংহশনিবার , ১১ মে ২০১৯

গৌরীপুর-কলতাপাড়া সড়কে ব্যবহৃত হচ্ছে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী

গৌরীপুর নিউজ
মে ১১, ২০১৯ ২:৩৩ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

ময়মনসিংহের গৌরীপুর-কলতাপাড়া সড়ক সংস্কার কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে পুরাতন ও নিম্নামানের ইটের শুরকি। রাস্তার দু’পাশে মাটি ভরাট না করায় এজিন দূর্বল হচ্ছে।

নির্মাণ কাজে অনিয়ম, নিম্নমানের মালামাল ব্যবহার ও ত্রুটিপূর্ণ মেরামতের কারণে সংস্কারকাজ শেষ হওয়ার পর বছর যেতে না যেতেই সড়ক ভেঙ্গে যায়। একারনে বারবার বরাদ্দ দিলেও কোন সুফল পাওয়া যাচ্ছে না।

সরেজমিনে দেখা যায়, পুরাতন কার্পেটিং এর উপর চলছে মেকাডমের কাজ। মেকাডমে ১নং ইটের খোয়া ব্যবহার করার কথা থাকলেও ব্যবহৃত হচ্ছে ২নং ও ৩নং ইটের কোয়ার সাথে ইটভাটার রাবিস। অত্যন্ত নিম্নমানের সুরকী ব্যবহার করার কারণে রোলার দেয়ার পর এসব সুরকী পাউডারে পরিণত হয়েছে। বাতাসের সঙ্গে উড়ছে রাবিশের পাউডার।

প্রকল্পের কাজ শুরু হওয়ার সাথে সাথে প্রকল্প এলাকায় প্রকল্পের তথ্য সংবলিত সাইনবোর্ড লাগানোর কথা থাকলেও সড়ক সংস্কার ও মেরামত কাজের দেড় মাস অতিবাহিত হলেও নেই কোন সাইনবোর্ড। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের নাম বা প্রকল্পিত অর্থের পরিমাণও জানে না এলাকাবাসী।

রাস্তায় নিম্নমানের সুরকী ও ইটের ব্যবহারের বিষয়টি স্বীকার করেন উপজেলা প্রকৌশলী আবু সালেহ মো.ওয়াহেদুল হক জানান, মেসার্স ইসতিয়াজ আহমেদ নামে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সড়কটির সংস্কার ও মেরামত কাজ করছে। ৩ হাজার ৮৩০ মিটার রাস্তার প্রাক্কলিক ব্যয় ধরা হয়েছে ৩ কোটি ২০ লাখ ১৫ হাজার ৪৩৬ টাকা। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে বারবার মানসম্মত ইটের খোয়া আনার জন্য বলা হয়েও তা বাস্তবায়ন হচ্ছে না। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান প্রকৌশল বিভাগের নির্দেশ না মানায় সড়ক সংস্কার ও মেরামত কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তাদের প্রকল্প এলাকা থেকে ফিরিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে। বিষয়টি উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষকেও অবহিত করা হয়েছে।

গুজিখা গ্রামের রুহুল আমিন বলেন, রাস্তা বড় করা হচ্ছে। দু’পাশে কোন মাটি ভরাট করা হয়নি। এমন সময় কাজ করা হচ্ছে যে সময় দু’পাশেই পাকা ধান। তাঁতকুড়া গ্রামের আবুল হাসিম জানান, রাস্তার পুরাতন ইট, পাথর মিশিয়ে দেয়া হচ্ছে।

শিক্ষক গোলাম মোহাম্মদ জানান, নিম্নমানের ইট ও রাবিস ব্যবহারের ফলে ও সময়মত পানি না দেয়ায় রাবিশের পাউডার উড়ে এ রাস্তায় চলাচলকারী মানুষের শ্বাসকষ্টসহ বিভিন্ন ধুলাবাহিত রোগ দেখা দিচ্ছে।

এ বিষয়ে গৌরীপুর উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মজিবুর রহমান ফকির বলেন, রাষ্ট্রের অর্থের অপচয় নয়। প্রয়োজন সুপরিকল্পিত ও টেকসই উন্নয়ন। যা সাধারণ মানুষের কল্যাণে আসবে। একই সড়ক কেন বারবার ভাঙছে তা নিরুপণ করে প্রতিরোধ ব্যবস্থাসহ সড়ক সংস্কার ও উন্নয়ন করা প্রয়োজন।

    ইমেইলঃ news.gouripurnews@gmail.com